অবশেষে জানা গেলো রোনাল্ডোর অদ্ভুত হেয়ার স্টাইলের নেপথ্যে কাহানী

অবশেষে জানা গেলো রোনাল্ডোর অদ্ভুত হেয়ার স্টাইলের নেপথ্যে কাহানী

চুলের এক ছাঁটেই বিশ্ব জিতে নিয়েছিলেন তিনি। বল পায়ে ফুটবল মাঠ শাসন করেছিলেন। আর মাঠের বাইরে তিনি আলোচনায় ছিলেন চুলের ছাঁটের জন্য। ২০০২ সালের ফুটবল বিশ্বকাপের অন্যতম প্রধান আকর্ষণ বললে এখনও স্মৃতিতে নাড়া দিয়ে যায় রোনাল্ডোর স্টাইলিশ চুলের কেতা। পুরো মাথা কামানো, শুধু মাথার সামনে অর্ধ-বৃত্তাকার চুলের ছাঁটে আলোড়ন ফেলে দিয়েছিলেন গোটা ফুটবল বিশ্বেই।

কিন্তু কেন এমন অদ্ভূত ছাঁটে দেখা গিয়েছিল ব্রাজিলিয়ান মহাতারকাকে? সেকথাই প্রকাশ্যে জানালেন রোনাল্ডো নাজারিও দ্য লিমা। তিনি জানালেন, নিজের চোট থেকে সংবাদমাধ্যমের আলোচনা বিরত রাখতেই এমন চুলের ছাঁটের শরণাপন্ন হয়েছিলেন তিনি।

দক্ষিণ কোরিয়া-জাপানের ওই বিশ্বকাপের আগে রোনালদোর চোট নিয়েই যত কথা। সেই ঘটনা থেকে সংবাদমাধ্যমের নজর ঘোরাতেই এমন ছাঁট। মেলবোর্নে এক অনুষ্ঠানে রোনাল্ডো বলেন, ‘‘আমার পায়ে একটা চোট ছিল। সবাই সেই আলোচনা নিয়েই ব্যস্ত ছিল। সেই সময়ে সিদ্ধান্ত নিলাম চুলের নতুন ছাঁটের। আর সামনে ওই অংশটুকু ফেলে রাখার। এরপর অনুশীলনে এলাম। সবাই আমাকে ওই ছাঁটে দেখল।’’

এতে সুবিধে কী হয়েছিল? সেটিও জানিয়েছেন রোনাল্ডো! জানান, ‘‘সবাই তখন আমার চুল নিয়েই কথা বলতে ব্যস্ত হয়ে পড়ল। চোটের কথা গেল বেমালুম ভুলে। এতে অনুশীলনে আরও নির্ঝঞ্ঝাটে খেলার ও মনোযোগী হওয়ার সুযোগ পেলাম।’’ ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি যদিও জানান, ‘‘মোটেও ওই ছাঁট নিয়ে গর্বিত নই। পুরোটাই অদ্ভূত ছিল। তবে এতে মানুষের নজর অন্যদিকে ঘোরানো গিয়েছিল।

অদ্ভূত সেই চুলের ছাঁট নিয়েই ব্রাজিলকে পাঁচ নম্বর বিশ্বকাপ এনে দিয়েছিলেন তিনি। ফাইনালে দু’গোল সহ মোট ৮ গোল করেছিলেন। সেইবারেই ব্রাজিল শেষবার বিশ্বকাপ জিতেছিল।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট