অবসরে টেনিস তারকা আগ্নিয়েস্কা রাদওয়ানস্কার

অবসরে টেনিস তারকা আগ্নিয়েস্কা রাদওয়ানস্কার

টেনিসে পোল্যান্ডের হয়ে ইতিহাস সৃষ্টিকারী। ২০টি ডব্লিউটিএ সিঙ্গেলস জয়ী। ২০১২ উইম্বলডনের রানার্স-আপ ও অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের দুইবারের সেমিফাইনালিস্ট। সাবেক নাম্বার ২ তিনি। নাম তার আগ্নেয়স্কা রাদওয়ানস্কা। ২৯ বছর বয়সেই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ক্যারিয়ারের ইতি টানার। বুধবার অবসরের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন এই পোলিশ টেনিস সেনশেসান।

অবসর নেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমি আজ আপনাদের সঙ্গে আমার জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তের বিষয়টি শেয়ার করব। ১৩ বছর প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক টেনিস খেলে আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি ইতি টানার। এটা আসলে খুব সহজ সিদ্ধান্ত ছিল না। আমি সত্যিই কৃতজ্ঞ গেল ১৩ বছরের দারুণ দারুণ সব স্মৃতির জন্য। ২০টি ডব্লিউটিএ শিরোপা, সিঙ্গাপুরের ডব্লিউটিএ চ্যাম্পিয়নশিপ ও উইম্বলডন ফাইনালসহ আরো অনেক কিছুর জন্য কৃতজ্ঞ।’

তিনি আরো বলেন, ‘দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমি সাধারণত যেভাবে অনুশীলন করি ও যেভাবে খেলি সেভাবে আর পারছি না। সম্প্রতি আমার শরীর আমার প্রয়োজনীয় চাওয়ার সঙ্গে পেরে উঠছে না। আমার স্বাস্থ্য ও পেশাদার টেনিসের চাপের বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে আমি বলতে চাই যে আমি আর পারছি না। আমার শরীর আর নিতে পারছে না।’

পেশাদার টেনিস ছাড়লেও টেনিসকে একেবারে বিদায় জানাচ্ছেন না তিনি। নতুন চ্যালেঞ্জ, নতুন আইডিয়া নিয়ে ফিরে আসার কথা জানিয়েছেন, ‘আমি র‌্যাকেট তুলে রাখছি। প্রো ট্যুরকে বিদায় জানাচ্ছি। তবে আমি টেনিস ছেড়ে যাচ্ছি না। আমার জীবনে টেনিস সব সময়ই বিশেষ কিছু। তবে এখন সময় নতুন চ্যালেঞ্জ নেওয়ার। নতুন আইডিয়া নিয়ে কাজ করার। আশা করছি সেগুলোও টেনিস কোর্টের সময়ের মতো রোমাঞ্চকর হবে।’

রাদওয়ানস্কা পোল্যান্ডের টেনিস ইতিহাসে প্রথম কোনো তারকা যিনি উন্মুক্ত যুগে  কোনো গ্র্যান্ডস্লামের ফাইনালে খেলেছেন। এবং তিনিই প্রথম কোনো পোলিশ টেনিস তারকা হিসেবে ডব্লিউটিএ ফাইনাল জিতেছেন। তিনি টানা ছয় বছর ডব্লিউটিএ ফ্যান ফেভারিট হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন। ২০০৮ থেকে ২০১৬ পর্যন্ত সব ধরনের প্রতিযোগিতায় সেরা ১৫ এর মধ্যে ছিলেন।

তবে সাম্প্রতিক সময়গুলোতে সুবিধা করতে পারছিলেন না। ২০১৬ সালের অক্টোবরের পর তিনি আর কোনো শিরোপা জিততে পারেননি। বর্তমানে তার র‌্যাঙ্কিং ৭৫। ২৯ বছর বয়সে এবং র‌্যাঙ্কিংয়ের পচাত্তরেই ইতি টানলেন ক্যারিয়ারের।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট