অস্ত্র সজ্জিত জে-১০ দিয়ে মার্কিন বিমানের গতিরোধের ঘটনা সমর্থন করল বেইজিং

অস্ত্র সজ্জিত জে-১০ দিয়ে মার্কিন বিমানের গতিরোধের ঘটনা সমর্থন করল বেইজিং

ক্ষেপণাস্ত্র সজ্জিত চীনা দুই যুদ্ধবিমান পাঠিয়ে মার্কিন গোয়েন্দা বিমানের গতিরোধের ঘটনাকে সমর্থন করেছে বেইজিং। বেইজিং বলেছে, চীনা সীমান্তের কাছে মার্কিন বিমানের গোয়েন্দা তৎপরতা দেশটির জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকি।

গত রোববার চীনের বন্দর নগরী কিনংদাওয়ের ৯০ মাইল বা ১৪০ কিলোমিটার দক্ষিণ দিয়ে উড়ছিল মার্কিন গোয়েন্দা বিমান ইপি-৩ এআরআইইএস। এ সময়ে ইপি-৩য়ের গতিরোধ করে আকাশ থেকে আকাশে নিক্ষেপযোগ্য ক্ষেপণাস্ত্র সজ্জিত চীনা জে-১০ দুই যুদ্ধবিমান।  এ সময়ে একটি জে-১০ মার্কিন বিমানের ৩০০ ফুট বা ৯০ মিটারের মধ্যেও চলে আসে। শেষপর্যন্ত সংঘর্ষ এড়াতে মার্কিন গোয়েন্দা বিমানটি হটে যেতে বাধ্য হয়। এ নিয়ে সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর গতকাল প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে চীনা প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

চীনা প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে জে-১০ পাইলটদের তৎপরতাকে আইনি, প্রয়োজনীয়  এবং পেশাদার হিসেবে অভিহিত করা হয়।

সীমান্তের কাছে মার্কিন বিমানের গোয়েন্দা তৎপরতা জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকি হিসেবেও অভিহিত করে চীনা প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। আমেরিকার এমন তৎপরতায় আকাশ ও সাগরে চীন-মার্কিন সামরিক নিরাপত্তা ক্ষতিগ্রস্ত করবে বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়। এ ছাড়া, উভয় দেশের পাইলটদের ব্যক্তিগত নিরাপত্তাও বিপদগ্রস্ত হবে বলে আশংকা ব্যক্ত করে চীন।

আমেরিকাকে এ রকম অনিরাপদ, অপেশাদার এবং অবন্ধুত্বসুলভ বিপজ্জনক সামরিক তৎপরতা থেকে বিরত থাকার আহ্বান বিবৃতিতে জানানো হয়। চীনা প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বেইজিং-ওয়াশিংটন সামরিক সম্পর্ক উন্নয়নে ইতিবাচক পদক্ষেপ নেয়ার জন্য আমেরিকার প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট