আইন করে বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে খৎনা করা

আইন করে বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে খৎনা করা

সমগ্র দেশ জুড়ে আইন করে বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে খৎনা। এমনই সিদ্ধান্ত নেওয়া হল আইনসভায়।

ধর্মীয় রীতির বিরুদ্ধে এমনই আইন নিয়ে এসেছে আইসল্যান্ডের আইনসভা। চলতি মাসের ফেব্রুয়ারি মাসের শুরুর দিকে ওই দেশের আইনসভায় এই বিষয়ে বিল নিয়ে আসা হয়। অধিকাংশ সদস্য সেই বিলে সমর্থন জানানোয় তা আইনে পরিণত হতে চলেছে।

ইসলাম ধর্মের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি রীতি হচ্ছে খৎনা। যেখানে যৌনাঙ্গের অল্প কিছু অংশ কেটে বাদ দিয়ে দেওয়া হয়। এই প্রক্রিয়াটিকেই বলা হয় খৎনা।

উল্লেখযোগ্য বিষয় হচ্ছে, খুব অল্প বয়সেই মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষদের খৎনা করা হয়। যা অত্যন্ত বেদনাদায়ক এবং অবশ্যই স্বাস্থ্যের পক্ষে হানিকারক। এই ধরনের কারণ দেখিয়েই সমগ্র দেশ জুড়ে খৎনা বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আইসল্যান্ডের আইনসভা। আইন অমান্য করলে কারাদণ্ডের ব্যবস্থাও রাখা হয়েছে। ওই আইন অনুসারে কোনও বালকের খৎনা করা হলে ছয় বছরের কারাদণ্ড হবে। ২০০৫ সালে মহিলাদের খৎনা নিষিদ্ধ করা হয়েছিল ওই দেশে।

যদিও সরকারের এই সিদ্ধান্তে খুশি নয় ওই দেশের মুসলিম সম্প্রদায়। আইনসভার এই সিদ্ধান্ত ‘ধর্মের উপরে আক্রমণের সমতুল’ বলে মন্তব্য করেছেন আইসল্যান্ডের মুসলিম অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট সালমান তামিনি।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট