আজম খানকে শূকরের গোশত খাওয়ালে ১ কোটি টাকা পুরস্কার: বজরং দল

আজম খানকে শূকরের গোশত খাওয়ালে ১ কোটি টাকা পুরস্কার: বজরং দল

ভারতের বিশ্ব হিন্দু পরিষদের ফায়ারব্রান্ড নেত্রী সাধ্বী প্রাচি উত্তর প্রদেশের সাবেক মন্ত্রী ও সমাজবাদী পার্টির সিনিয়র নেতা মুহাম্মদ আজম খান ও কাশ্মিরের হুররিয়াত নেতাদের ফাঁসি দেয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন।

অন্যদিকে,  উগ্রহিন্দুত্ববাদী বজরং দলের পক্ষ থেকে আজম খানের মুণ্ডচ্ছেদ করতে পারলে ৫১ লাখ টাকার পুরস্কার ঘোষণা করাসহ তার মুখে কালী লেপে দিয়ে শূকরের গোশত খাওয়াতে পারলে ১ কোটি টাকার পুরস্কারের ঘোষণা করেছে।

সোমবার গণমাধ্যমে প্রকাশ, হরিদ্বারে এক অনুষ্ঠানে অংশ নিতে গিয়ে সাধ্বী প্রাচি বলেন, সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে খারাপ মন্তব্যকারী আজম খানকে চৌরাস্তায় চাবকিয়ে ফাঁসি দেয়া উচিত। তিনি কাশ্মিরে সহিংসতা এবং পাথর ছোঁড়ার ঘটনার জন্য হুররিয়াত নেতাদের দায়ী করে তাদের কাশ্মিরের লালচকে ফাঁসি দেয়ার দাবি করেছেন।

সাধ্বী প্রাচি প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে দেশে গরু জবাই বন্ধ করতে কঠোর আইন তৈরি করার দাবি জানিয়ে বলেন, এমন আইন করতে হবে যাতে গরু জবাইকারীকে প্রকাশ্যে ফাঁসিতে মৃত্যুদণ্ডের ব্যবস্থা থাকে।

অন্যদিকে, উত্তর প্রদেশের রামপুরের বজরং দলের সদস্যরা আজম খানের মুণ্ডচ্ছেদ করতে পারলে ৫১ লাখ টাকার পুরস্কার ঘোষণা করাসহ তার মুখে কালী লেপে দিয়ে শূকরের গোশত খাওয়াতে পারলে ১ কোটি টাকার পুরস্কারের ঘোষণা করেছেন।

উত্তর প্রদেশের সাবেক মন্ত্রী ও সমাজবাদী পার্টির সিনিয়র নেতা মুহাম্মদ আজম খান

উত্তর প্রদেশের সাবেক মন্ত্রী ও সমাজবাদী পার্টির সিনিয়র নেতা মুহাম্মদ আজম খান

বজরং দলের কর্মকর্তা সরবেশ গাঙ্গোয়ারের মতে, আজম খান প্রকৃত মুসলিম নন।

সম্প্রতি বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সাজাহানপুর জেলা সভাপতি রাজেশ অবস্তি আজম খানের জিভ কাটতে পারলে ৫০ লাখ টাকা পুরস্কারের ঘোষণা দিয়েছেন।

বিজেপি’র সিনিয়র নেতা ও এমপি সুব্রামনিয়াম স্বামীর দাবি,  আজম খান যা বলেছেন তা যদি কোনো মুসলিম অধ্যুষিত দেশে বলতেন তাহলে তার শিরশ্ছেদ করা হতো।

আজম খান সম্প্রতি বলেন, একদিকে সীমান্তে লড়াই চলছে, অন্যদিকে নারীরা সেনা জওয়ানদের হত্যা করছেন। নিশ্চয়ই কিছু ঘটেছে, এই ঘটনা কিন্তু আমাদের সেটাই ভাবতে বাধ্য করছে।’

আজম খান বলেন, ‘সশস্ত্র নারীরা এসে ভারতীয় সেনার যৌনাঙ্গ কেটে নিয়ে যাচ্ছে। এর অর্থ হল জওয়ানদের শরীরের ওই অঙ্গটি নিয়ে তাদের অসুবিধা রয়েছে। এর মাধ্যমে কড়া বার্তাই দিতে চেয়েছে তারা। এই ঘটনা পর্দা সরিয়ে ভারতের আসল রূপ সকলের সামনে তুলে ধরেছে। গোটা দেশের এজন্য লজ্জিত হওয়া উচিত।’

তীব্র সমালোচনার মুখে পড়ে আজম খান তার সাফাইতে বলেন, গণমাধ্যমে তার মন্তব্যকে বিকৃত করা হয়েছে।

গত (শনিবার) আজম খানের বিরুদ্ধে হজরতগঞ্জ ও রামপুরের সিভিল লাইনস থানায় মামলা দায়ের হয়। তার বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ১২৪-এ, ১৩১ ও ৫০৫ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট