আজ শনিবার রংপুর ৩ আসনে ভোট, সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন

আজ শনিবার রংপুর ৩ আসনে ভোট, সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন

কঠোর নিরাপত্তা ও ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে আজ শনিবার (৫ অক্টোবর) সকাল থেকে শুরু হচ্ছে রংপুর সদর ৩ আসনের উপ-নির্বাচন। এরমধ্যে প্রতিটি কেন্দ্রে ভোটের সরঞ্জাম পৌঁছে দেওয়া প্রায় শেষ  হয়েছে। অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভোটগ্রহণের সকল প্রস্ততি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন।

নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, শনিবার সকাল ৯ টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হবে। এ জন্য কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। রংপুর পুলিশ হল ও পুলিশ লাইনে নির্বাচনী মালামাল বুঝিয়ে দেয়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে নির্বাচন কমিশন।

এ ব্যাপারে সদর থানার ওসি সাজেদুল ইসলাম জানান, প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে যাতে নির্বাচনী মালামাল পৌঁছে যায় সে জন্য প্রতিটি ট্রাকে প্রিসাইডিং অফিসারের নেতৃত্বে পর্যাপ্ত পুলিশ ও আনসার বাহিনীর সদস্য থাকছেন। এ ছাড়াও পুলিশের পেট্রোলিং থাকবে।

তিনি জানান, রাতে প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে নির্বাচনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারী ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ভোট কেন্দ্রে অবস্থান করবেন। তাদের নিরাপত্তার জন্য সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

হরিদেবপুর স্কুল ভোট কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার সালাম জানান, পোলিং অফিসারসহ অন্যান্যদের নিয়ে পুলিশ ও আনসার বাহিনীর সহায়তায় নির্বাচনী সরঞ্জাম ভোট কেন্দ্রে নিয়ে যাচ্ছি। সেখানেই রাত্রি যাপন করে সকালে ভোট গ্রহণ করবেন। ভোট গ্রহণ শেষে ইভিএমের মাধ্যমে ফলাফল ঘোষণা করবেন বলে জানান। একই কথা জানান কদম তলা ভোট কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার আনোয়ারুল ইসলাম।

রংপুরের পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার বললেন প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ভোট কেন্দ্রে নিরাপত্তার পাশাপাশি ভোটাররা নিরাপদে যাতে ভোট কেন্দ্রে এসে আবারও নিরাপদে বাসায় ফিরে যেতে পারে সে জন্য ষ্টাইকিং এবং মোবাইল টিম সারাক্ষণ পেট্রোল ডিউটি করবে।

জাতীয় পার্টির প্রয়াত চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের মৃত্যুর পর এ আসনটি শূন্য হয়ে যায়। এরপর তফসিল ঘোষণা অনুযায়ী শনিবার আসনটির উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।  রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার জিএম সাহাতাব উদ্দিন জানান, এই নির্বাচনে শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণে প্রিজাইডিং, পুলিং অফিসার, নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ মোট ৭ হাজার জনবল নিয়োজিত রয়েছেন। এর মধ্যে ৩ হাজার ৭শ ভোটগ্রহণ কর্মকর্তা, আনছার পুলিশসহ ৩ হাজার আইনশৃংখলা বাহিনী দায়িত্ব পালন করবেন।

রিটার্নিং অফিসার জিএম শাহাতাব উদ্দিন ভোটারদের ভোট কেন্দ্রে উৎসব মুখর পরিবেশে ভোট দেবার আহ্বান জানান।

এছাড়া র‌্যাবের ২০টি মোবাইল টিম, ১৮ প্লাটুন বিজিবি, সাদা পোষাকের গোয়েন্দা পুলিশ, ১৮ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ৪ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করবেন। এর বাইরে নির্বাচন কমিশনের একটি তদন্ত কমিটি ভোটের মাঠ তদরকি করবেন।

উল্লেখ্য, রংপুর সদর-৩ আসনের ভোট প্রদান করবেন চার লাখ ৪১ হাজার ২২৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার দুই লাখ ২০ হাজার ৮২৩ জন ও নারী ভোটারের সংখ্যা দুই লাখ ২০ হাজার ৪০১। এছাড়া এ নির্বাচনে সাতজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ