আফ্রিদি-তামিমের ব্যাটে জয় দিয়ে শুরু কুমিল্লার

আফ্রিদি-তামিমের ব্যাটে জয় দিয়ে শুরু কুমিল্লার

শহীদ আফ্রিদি ও তামিম ইকবালের ব্যাটিং নৈপুণ্যে আসরে নিজেদের প্রথম ম্যাচে জয় দেখলো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

রোববার সিলেট সিক্সার্সের বিপক্ষে ৪ উইকেটে জয় পায় ২০১৫-১৬’র চ্যাম্পিয়নরা। মিরপুর শেরে বাংলা মাঠে টস জিতে সিলেট সিক্সার্সকে ব্যাটিংয়ে পাঠান কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ। আর ১২৭/৮ সংগ্রহ নিয়ে ইনিংস শেষ করে সিলেট। জবাবে ১ বল বাকি রেখে টার্গে পার করে কুমিল্লা।

জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ২১ রানে রানে দুই উইকেট হারায় কুমিল্লা। ওপেনার এবিন লুইস ৫ রান করলেও শূন্য হাতে ফেরেন ইমরুল কায়েস। এরপর অধিনায়ক স্টিভ স্মিথকে সঙ্গে করে দলের হাল ধরেন ওপেনার তামিম ইকবাল। তবে দলীয় ৫১ রানে ব্যক্তিগত ১৬ রানে ফেরেন স্মিথ। এরপর দলের রানের সঙ্গে ১৩ রান যোগ করে শোয়েব মালিক ফেরেন ব্যক্তিগত ১৩ রানে। এরপর দলীয় ৮৩ রানে ব্যক্তিগত ৫ রানে বোল্ড হয়ে ফেরেন উইকেটরক্ষক এনামুল হক।

এরপর তামিমের সঙ্গে ব্যাটিংয়ে আসেন শহীদ আফ্রিদি। তবে দলীয় ৯৭ রানে ব্যক্তিগত ৩৫ রানে রানআউট হয়ে ফেরেন ওপেনার তামিম ইকবাল। আউট হওয়ার আগে ৩৪ বলে ১ চার ও ১ ছক্কায় ৩৫ রান করেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।

এরপর আফ্রিদির সঙ্গে ব্যাটিংয়ে আসেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। দুজন মিলে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন। আফ্রিদি ৩৯ ও সাইফউদ্দিন ৫ রানে অপরাজিত থাকেন।

সিলেটের আল-আমিন হোসেন ও সন্দ্বীপ লামিচানে ২টি করে উইকেট নেন। এছাড়াও মোহাম্মদ ইরফান ১টি করে উইকেট নেন।

এর আগে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় কুমিল্লার অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ। আগে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৫৬ রানেই পাঁচ উইকেট হারায় সিলেট। ওপেনার লিটন দাস ১, ডেভিড ওয়ার্নার ১৪, আফিফ হোসেন ১৯, তৌহিদ হৃদয় ৮, সাব্বির রহমান ফেরেন ব্যক্তিগত ৭ রানে। এরপর দলের অলক কাপালিকে সঙ্গে করে দলের হাল ধরেন নিকোলাস পুরান। তবে ঝড়ো ব্যাটিংয়ের দলকে বড় সংগ্রহের দিকে নিয়ে যেতে থাকলেও, দলীয় ১১১ রানে ফেরেন পুরান। তবে আউট হওয়ার আগে ২৬ বলে ৫ চার ও ২ ছক্কায় ৪১ রান করেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান।

তবে এরপর দলীয় ১২২ রানে অলক কাপালি ব্যক্তিগত ১৯ রানে ফিরলে সিলেটের ইনিংস। শেষ দিকে তাসকিন ৪ রান করে আউট হন। সন্দ্বীপ লামিচানে ও আল আমিন হোসেন ১ রানে অপরাজিত থাকেন।

কুমিল্লার মেহেদী হাসান, মোহাম্মদ শহীদো মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ২টি করে উইকেট নেন। আর শহীদ আফ্রিদি নেন একটি উইকেট।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট