আবারও ট্রল হলেন সুহানা!

আবারও ট্রল হলেন সুহানা!

ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে অনেকেই স্ট্রাগল করেন। অনেকেই আবার সহজেই সুযোগ পেয়ে থাকেন। কিন্তু স্টার কিডদের আবার স্ট্রাগল কীসের?

না! এ ধারণা একেবারেই ভুল। স্টার কিডদেরও স্ট্রাগল আছে বৈকি।

এই যেমন ধরুন সুহানা খান। চলতি মাসে ‘ভোগ’ ম্যাগাজিনের কভার গার্ল হয়েছেন সুহানা।

সুহানা বলেন, অনেকেই ভাবেন আমি একেবারেই স্ট্রাগল করি না। কিন্তু ভোগের কভার শুটিংয়ের জন্য আমাকে অনেক স্ট্রাগল করতে হয়েছে। ওই দিন আমার জাগুয়ারটা চলছিল না। অডিতে করে স্টুডিও যেতে হয়েছিল। ফার্স্ট ফ্লোরে স্টুডিও ছিল। লিফট কাজ করছিল না। বাধ্য হয়ে সিঁড়ি ভেঙে উঠেছিলাম। পুরো পাঁচ মিনিট গরমে কষ্ট পেয়েছিলাম…।

অবাক হচ্ছেন তো? ভাবছেন এই কথা সুহানা বলেছে? জাগুয়ারে না চড়ে অডিতে করে স্টুডিও যাওয়া, অথবা দোতলায় সিঁড়ি দিয়ে ওঠা তার কাছে স্ট্রাগল? পড়ে রাগ হচ্ছে তো?

ঠিকই। রাগ তো হওয়ারই কথা। কিন্তু এ কথা সুহানা বলেননি। আনন্দবাজারের খবরে বলা হয়, এই খবর প্রকাশিত হয়েছিল ‘ফেকিং নিউজ’ নামের একটি ওয়েবসাইটে। নাম শুনেই নিশ্চয়ই আন্দাজ করতে পারছেন, এখানে মিথ্যা খবরই প্রকাশিত হয়। এই ওয়েবসাইটে খবরের সঙ্গে এই বার্তা স্পষ্ট করে দেওয়া থাকে যে, নিতান্তই মজা করতে এ ধরনের খবর করা হয়েছে। এর কোনও সত্যতা নেই। কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়ায় দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে এই খবর। সত্যতা যাচাই না করেই পাঠক ধরে নেন, এ কথা বলেছেন সুহানা। তার পরই তাকে ট্রল করতে শুরু করে সোশ্যাল অডিয়েন্স। এই খবরই ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়।

এমনিতেই ‘ভোগ’-এর কভার গার্ল হওয়ার পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রল হতে হচ্ছে এই স্টার কিডকে। কখনও শুনতে হয়েছে বাবার নাম শাহরুখ খান, সে কারণেই এই সুযোগ পেয়েছেন সুহানা। কখনও বা বলা হয়েছে, সুহানাকে কভার গার্ল করা মানে ‘ভোগ’-এর কোয়ালিটি কমে যাওয়া।

এমন সমালোচনার মুখে প্রথমে নিশ্চুপ থাকলেও পরে মুখ খোলেন সুহানা। ‘ভোগ’কে দেওয়া সাক্ষাত্কারে তিনি বলেন, ‘বাড়িতে তো সব ঠিকই থাকে। আসল চ্যালেঞ্জটা বাইরের। আসলে লোকে মনে করে তারা যে কোনও মূল্যে সকলকে বিচার করতে পারে। বিশেষ করে সোশ্যাল মিডিয়ায়। এটা মেনে নেওয়াটা খুব কঠিন।’ সেই সুহানাকে এবার ভুল খবরের কারণেও ট্রল হতে হল!

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট