আমরা আইনী লড়াই করবো, সঙ্গে সঙ্গে রাজপথেও থাকবো- ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ

আমরা আইনী লড়াই করবো, সঙ্গে সঙ্গে রাজপথেও থাকবো- ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য দলের নেতাকর্মীদের আন্দোলনের প্রস্তুতি নিয়ে বলেছেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।

আজ শুক্রবার  জাতীয় প্রেসক্লাবে ঢাকাস্থ ফেনী জেলা জাতীয়তাবাদী ছাত্র ও যুব ফোরাম আয়োজিত ‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া’র নি:শর্ত মুক্তি এবং সিনিয়র ভাইস-চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে এক প্রতিবাদ সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মওদুদ আহমদ বলেন, আমরা আইনী লড়াই করবো, সঙ্গে সঙ্গে রাজপথেও থাকবো। আইনী লড়াইয়ের সীমাবদ্ধতা আছে, কিন্তু জনতার আন্দোলনের কোনো সীমাবদ্ধতা নাই। সেজন্য আমাদেরকে প্রস্তুতি নিতে হবে।

তিনি বলেন, সময় একদিকে আছে, অন্য দিকে বলতে হয় সময় অনেক কম।

সরকারের সময় যেমন কম আমাদের সময়ও কম। সেজন্য আমাদের প্রস্তুতি নিতে হবে। হঠাৎ করে কঠোর আন্দোলন দেয়া যায় না। আমরা ইতিহাস পড়লে দেখবো, ধীরে ধীরে আন্দোলন একটা চুড়ান্ত পর্যায়ে যায়। আমাদেরকেও এই আন্দোলন ধীরে ধীরে এমন একটা চুড়ান্ত পর্যায়ে নিয়ে যেতে হবে। সরকার তখন বাধ্য হবে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেবে এবং নির্দলীয় সরকার গঠনের মাধ্যমে দেশের সুষ্ঠ নির্বাচনের ব্যবস্থা করবে। এর কোনো বিকল্প নাই। সরকার যদি সমঝোতায় না আসে এর একমাত্র উত্তর রাজ পথ দিতে হবে।

তিনি আরো বলেন, সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে খালেদার জিয়ার স্বাস্থ্য ভালো নেই, শারীরিকভাবে সুস্থ নয়। সেজন্য তাকে আদালতে হাজীর করা যাচ্ছে না। এর অর্থ কি? এটা হল ষড়যন্ত্রের অংশ, এখন শারিরীক ভাবে আরও দুর্বল করা। আজকে বেগম জিয়ার স্বাস্থ্যের কোনো রকম অবনতি ঘটলে এর সম্পূর্ণ দায়িত্ব এই সরকারকেই নিতে হবে। বাংলাদেশের মানুষ এই সরকারকে ক্ষমা করবে না।

জেল কোড অনুযায়ী খালেদা জিয়ার চিকিৎসা করানোর আহ্বান জানিয়ে মওদুদ আহমদ বলেন, বেগম জিয়ার চিকিৎসক ছাড়া মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা লোক দেখানো। গত এক যুগ ধরে যারা বেগম জিয়ার চিকিৎসা করেছেন তাদের দিয়ে কারাগারে চিকিৎসা করার ব্যবস্থা করতে হবে।

আয়োজক সংগঠনের সমন্বয়ক ওমর ফারুক ডালিমের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টু, বরকত উল্লাহ বুল, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানী, মিরপুর থানা বিএনপির সভাপতি আব্দুল মজিদ, সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন দুলু প্রমুখ।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট