আমরা সবসময় একটা নিরপেক্ষ নির্বাচন চাই: কাদের

আমরা সবসময় একটা নিরপেক্ষ নির্বাচন চাই: কাদের

৭ ই নভেম্বরের পর আর  আর কোন সংলাপ হবে না বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পাদক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, তফসিল ঘোষণার সময় ঘনিয়ে আসায় আট তারিখ পর্যন্ত যেতে পারছি না, ৭ তারিখে শেষ করব। ৭ তারিখের পরে আর  কোনো আলোচনা নয়।

শনিবার জেল হত্যা দিবস উপলক্ষে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন মন্ত্রী।আওয়ামী লীগ সবসময়ই এমন নির্বাচন চায় যেখানে সব দলের অংশগ্রহণ থাকবে। নিবন্ধিত সব রাজনৈতিক দল নির্বাচনে অংশ নেবে এটাই দলটির প্রত্যাশা থাকে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শনিবার (৩ নভেম্বর) সকালে জেল হত্যা দিবস উপলক্ষে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন মন্ত্রী।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর ৩ রা নভেম্বর জাতীয় চার নেতাকে হত্যা করা এবং ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু কন্যার উপর গ্রেনেড হামলা করে ২৪ জনকে হত্যা করা এসব একই সূত্রে গাঁথা।’

এসময় সংলাপ নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমরা সবসময় একটা নিরপেক্ষ নির্বাচন চাই, যেখানে সব দলের অংশ গ্রহণ থাকবে এবং সেখানে নিবন্ধিত সব রাজনৈতিক দল অংশ নেবে এটাই আমাদের প্রত্যাশা।’

তবে নির্বাচনকে সামনে রেখে সহিংসতার পথ বেছে নিলে সমুচিত জবাব দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘এর কোন ব্যত্যয় দেশের জন্য শুভ নয়। আমরা সতর্ক আছি কারণ কারও মনে যদি হেন কোন মতলব থাকে, কেউ যদি আজকে সংলাপে এসে লোক দেখানো অংশ নিয়ে ভিতরে ভিতরে নির্বাচনের প্রস্তুতির পাশাপাশি কেউ কেউ যদি নাশকতার ছক আঁকে, যদি সহিংসতার দিকে পা বাড়ায়, সেই দিকেও আমরা সতর্ক আছি।’

‘আমরা সংলাপও করছি নির্বাচনের প্রস্ততিও নিচ্ছি, সঙ্গে সঙ্গে কেউ যদি নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র করে সেটার সমুচিত জবাবের প্রস্তুতিও আমরা নিচ্ছি। নির্বাচনের প্রস্তুতির নামে লোক দেখানো সংলাপের পেছনে নির্বাচন বানচালের মতো যেকোনো অপতৎপরতার বিষয়ে সতর্ক আছে আওয়ামী লীগ’, যোগ করেন ওবায়দুল কাদের।

সংলাপে বিএনপি সন্তুষ্ট নয় এমন প্রশ্নের জবাবে কাদের বলেন, ‘সবাই তো আর সন্তুষ্ট হবে না। বিএনপি সন্তুষ্ট হবে, কি হবে না, সে টা না, আমরা দলনেতার কথা বিবেচনায় নিচ্ছি। তিনি কিন্তু বলেছেন ভালো আলোচনা হয়েছে, তাতে আমরা সেখানেই আপাতত থাকি।’

বিকল্প ধারার সঙ্গে সংলাপের প্রসঙ্গ টেনে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিকল্পধারার নেতারাও মুক্তিযুদ্ধের অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধুর ব্যপারে কিন্তু তারা দ্বিমত করেন নি। তাদের কিছু কিছু দাবি আমাদের নেত্রী মেনে নেওয়ার কথাও বলেছেন, যেগুলো সংবিধানের বাহিরে যাবে না সেগুলো। যেগুলো গ্রহণযোগ্য, যার জন্য সংবিধান সংশোধন করতে হবে না সেগুলো মেনে নিতে আপত্তি নেই। বিকল্প ধারার দাবি অনুযায়ী নির্বাচন কমিশনের কিছু কিছু বিষয়ে ইলেকশন কমিশনকে বলার জন্য মহামান্য রাষ্ট্রপতিকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অনুরোধ করবেন বলেও জানিয়েছেন।’

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট