ইতিহাস ডাকছে রোনালদোকে

ইতিহাস ডাকছে রোনালদোকে

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে ২০০৯ সালে প্রথমবার চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপার স্বাদ পেয়েছিলেন। এরপর রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে আরও তিনবার ইউরোপ সেরার মুকুট ছুঁয়েছেন তিনি। এবার সিআর সেভেনকে ডাকছে ইতিহাস।

আগামী ২৬ মে লিভারপুলের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে কিয়েভে নামবে রিয়াল মাদ্রিদ। ঐ ম্যাচ জিতলেই ইতিহাসের পঞ্চম খেলোয়াড় হিসেবে পাঁচবার এ ট্রফির স্বাদ পাবেন পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড।

একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে ছয়বার চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জয়ের রেকর্ডটি রয়েছে ১৯৫০ ও ১৯৬০ এর দশকে রিয়াল মাদ্রিদে খেলা উইঙ্গার পাকো গেন্তো। এদিকে এ ট্রফি পাঁচবার জিতেছেন রিয়াল কিংবদন্তি আলফ্রেদো দি স্তেফানো ও হেক্টর রিয়াল এবং এসি মিলানের পাওলো মালদিনি ও আলেসান্দ্রো কস্তাকুর্তা।

এবার চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জিততে পারলেই রোনালদোও ঢুকে যাবেন ইতিহাসের পাতায়। এ ব্যাপারে রিয়াল মাদ্রিদ টিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সিআর সেভেন বলেন, ‘এটা একটা ঐতিহাসিক মুহূর্ত হতে পারে। আমরা রোমাঞ্চিত, পুরো দল। যে ইতিহাস গড়ছি আমরা তা পুরোপুরি উপলব্ধি করতে পারছি না।’

চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জিততে আত্মবিশ্বাসী রোনালদো ও তার সতীর্থরা। ‘আমি আত্মবিশ্বাসী ও ভালো বোধ করছি, আমার সতীর্থরাও ভালো অনুভব করছে। পঞ্চম শিরোপা জয় দুর্দান্ত হবে।’

যেকোন টুর্নামেন্টের ফাইনাল রোনালদোর কাছে বিশেষ কিছু। তবে এবারের চ্যাম্পিয়নস লিগে রিয়ালের প্রতিপক্ষ ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড হলে বেশি খুশি হতে পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড।‘ফাইনাল সব সময় বিশেষ কিছু। প্রতিপক্ষ ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড হলে আমি পছন্দ করতাম। লিভারপুলকে আপনার অনেক সম্মান করতেই হবে। আমি বিশ্বাস করি না এটা সহজ কিছু হবে। তারা সেখানে থাকার যোগ্য। তারা আমাকে তিন বা চার বছর আগের মাদ্রিদের কথা মনে করিয়ে দিচ্ছে। আক্রমণভাগের তিনজন… খুব দ্রুত ও শক্তিশালী। আমি সেটা সমীহ করি।’

চলতি চ্যাম্পিয়স লিগে এখন পর্যন্ত ১২ ম্যাচে ১৫ গোল করেছেন রোনালদো। তবে টুর্নামেন্টে নিজের সেরা মুহূর্তটা নির্দিষ্ট করা কঠিন বলে মনে করেন তিনি।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট