ইনিংসটা যত বেশি সম্ভব লম্বা করতে চান তামিম

ইনিংসটা যত বেশি সম্ভব লম্বা করতে চান তামিম

পিএসএলের প্লে অফ থেকে সেই যে হাঁটুর চোট ছিটকে দিয়েছিল, এরপর মাঠেই নামতে পারেননি। আফগানিস্তান সিরিজের ক্যাম্পে আবার পুরোপুরি অনুশীলন শুরু করেছেন তামিম ইকবাল, আজ মিরপুরে ক্রিকেটারদের সঙ্গে প্রস্তুতি ম্যাচে শুরুতে ব্যাটও করেছেন। আফগানিস্তানের সঙ্গে আবার ফিরছেন ক্রিকেটে, তামিম বেশ রোমাঞ্চিতই। তবে নিজের ব্যক্তিগত লক্ষ্য হিসেবে ঠিক করেছেন, ইনিংসটা যত বেশি সম্ভব লম্বা করতে চান তামিম।

অনেকদিন পর ২২ গজে নামার আগে আজ তামিম কথা বলেছিলেন প্রচারমাধ্যমের সঙ্গে। সেখানেই নিজের উচ্ছ্বাসের কথা জানালেন, ‘অবশ্যই খুব রোমাঞ্চিত। কারণ প্রায় ২ মাস আমি পুনর্বাসনে ছিলাম। আজকেই প্রস্তুতি ম্যাচের মতো খেলব। যে ইনজুরিটি ছিল, আশা করি ভালো ভাবেই কাটিয়ে উঠতে পেরেছি। আমাদের হাতে যতটুকু ছিল, তার চেয়ে বেশিই করেছি আমরা। ফিজিও বলেন বা ট্রেনার, আমার যতটুকু স্ট্রেংথ দরকার ছিল, তার চেয়ে বেশিই করেছি। ফিটনেসের দিক থেকেও আগের চেয়ে ভালো অবস্থায় আছি। সব মিলিয়ে আমার মনে হয় প্রতিটি বক্স ঠিক করেছি। এখন দেখা যাক, খেলায় কোনো ঝামেলা না হলেই হয়।’

তবে নিজের ফিটনেসের এখনো উন্নতির সুযোগ দেখছেন, ‘ওই অবস্থাই বলতে পারেন। আগের চেয়ে ফিটনেসে অনেক ভালো অবস্থায় আছি। সব ঠিক। তবে এটিই মানদণ্ড নয়। এখান থেকে আরও ভালো হতে পারি। কারণ আমাদের দলেই এমন অনেকে আছে, যাদের পর্যায়ে যেতে হলে আমাকে আরও কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। অনেক কষ্ট করতে হবে। হ্যাঁ, বলতে পারেন যে গত ৬ মাসের কথা বললে, এখন অনেক ভালো অবস্থায় আছি।’

কিন্তু আফগানিস্তান সিরিজে তামিম নিজে কী করতে চান? তামিম বলটা ঠেলে দিতে চাইলেন টিম ম্যানেজমেন্টের কোর্টেই, ‘আমাকে যদি অ্যাংকরের ভূমিকা দেওয়া হয়, আমাকে সেটাই করতে হবে। এমনিতে প্রথম ৬ ওভারে শট খেলেতেই হবে। সুযোগ নিতেই হবে। ৬ ওভারের মধ্যে আউট হয়ে গেলে তো হয়েই গেলাম। ওপেনারদের এই ঝুঁকি নিতেই হবে। কিন্তু যদি সেটা পার করে দিতে পারি, তাহলে আমার লক্ষ্য থাকবে লম্বা ইনিংস খেলা। ছয়ের পর থেকে ১৫ ওভারের সময়টুকুই টি-টোয়েন্টিতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। ওখানে যদি আমরা বেশি উইকেট না হারাই এবং একজন যদি লম্বা ইনিংস খেলতে পারে, সেটিই আমাদের জন্য সবচেয়ে ভালো হবে। আমি ওরকম করতে পারলে দারুণ হবে।’

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট