‘ইরানের তেল বিক্রির ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা ব্যর্থ হতে যাচ্ছে’

‘ইরানের তেল বিক্রির ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা ব্যর্থ হতে যাচ্ছে’

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বাহরাম কাসেমি বলেছেন, পরমাণু সমঝোতা থেকে আমেরিকা বেরিয়ে যাওয়ার পর তার দেশের অর্থনৈতিক স্বার্থ রক্ষার লক্ষ্যে তেহরান ও ইউরোপ এ যাবতকালের মধ্যে সবচেয়ে কাছাকাছি অবস্থানে পৌঁছে গেছে।

তিনি সোমবার তেহরানে এক সংবাদ সম্মেলনে এ খবর জানিয়ে বলেন, সম্প্রতি নিউ ইয়র্কে পাঁচ জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে ইরানের ফলপ্রসূ বৈঠক হয়েছে এবং সেখানে দ্বিপক্ষীয় অর্থনৈতিক সহযোগিতা শক্তিশালী করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

কাসেমি বলেন, মার্কিন সরকার ইরানকে চাপের মধ্যে ফেলার জন্য পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গিয়ে তেহরানের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। কিন্তু পরমাণু সমঝোতায় স্বাক্ষরকারী বাকি দেশগুলো মার্কিন নিষেধাজ্ঞার প্রভাব কমানোর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সম্মত হয়েছে। তিনি বলেন, এখন উল্টো মার্কিন সরকার নিজেই চাপের মধ্যে পড়েছে।

আগামী নভেম্বরে ইরানের তেল বিক্রির ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হওয়ার আগেই ইউরোপীয় দেশগুলো ইরানের তেল রপ্তানি অব্যাহত রাখার জন্য ব্যবস্থা নিতে সম্মত হয়েছে বলেও জানান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র। তিনি বলেন, মার্কিন নিষেধাজ্ঞা ইরানের তেল রপ্তানির ওপর কোনো প্রভাব ফেলবে না।

বাহরাম কাসেমি সতর্ক করে দিয়ে বলেন, ইউরোপীয়দের পক্ষ থেকে দেয়া প্রতিশ্রুতি লঙ্ঘন করা হলে কিংবা তাদের পক্ষ থেকে নেয়া ব্যবস্থা কাজ না করলে ইরান পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাবে।

রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ সম্প্রতি নিউ ইয়র্কে এক সংবাদ সম্মেলনে ইহুদিবাদী ইসরাইল সঙ্গে ইরানের সম্ভাব্য আলোচনায় মধ্যস্থতা করার যে প্রস্তাব দিয়েছেন সে সম্পর্কিত এক প্রশ্নের জবাব দেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র। তিনি বলেন, ফিলিস্তিন জবরদখলকারী অবৈধ রাষ্ট্র ইহুদিবাদী ইসরাইলের ব্যাপারে ইরানের অবস্থান অত্যন্ত পরিষ্কার। এই দখলদার সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসার প্রশ্নই আসে না।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট