ইরান দেয়াল ভেঙে স্পেনের স্বস্তির জয়

ইরান দেয়াল ভেঙে স্পেনের স্বস্তির জয়

ইরানের দুর্ভাগ্যকে দোষ দেওয়া ছাড়া আর কোনও উপায় নেই। গোল করেও ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারিতে (ভিএআর) তা বাতিল হলো, এর আগে আবার বল ঠেকাতে গিয়ে ডিয়েগো কোস্তার পায়ে লাগিয়ে নিজেদের জালেই বল জড়িয়ে দেয় তারা। শেষ পর্যন্ত কোস্তার ওই গোলটাই তাদের বিপক্ষে স্পেনকে এনে দিয়েছে ১-০ ব্যবধানের জয়।

পর্তুগালের বিপক্ষে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের পরও স্পেনকে ৩-৩ গোলের ড্র নিয়ে ছাড়তে হয়েছিল মাঠ। অন্যদিকে মরক্কোকে প্রথম ম্যাচে হারিয়ে আত্মবিশ্বাসী হয়ে মাঠে নেমেছিল ইরান। এশিয়ার দেশটির যেখানে ছিল শেষ ষোলোর পথে বড় ধাপ ফেলার সুযোগ, সেখানে স্পেনের জন্য ছিল ঘুরে দাঁড়ানোর মিশন। কাজানের উত্তেজনাকর সেই দ্বৈরথে জয় হলো স্পেনেরই। কোস্তার লক্ষ্যভেদে ইরানকে ১-০ গোলে হারিয়ে নকআউট পর্বের পথে থাকলো ‘লা রোহারা’।

‘বি’ গ্রুপে এখন পর্তুগাল ও স্পেনের দুই দলেই সমান ৪ পয়েন্ট, গোল ব্যবধানও সমান। তৃতীয় স্থানে থাকা ইরানের পয়েন্ট ৩।

প্রথমার্ধে স্পেন প্রচুর পাস খেললেও ভালো আক্রমণ হয়নি। বলার মতো প্রথম সুযোগ সৃষ্টি হয় ৩০তম মিনিটে। ডেভিড সিলভা বক্সের ভেতর থেকে সেটি বারের উপর দিয়ে উড়িয়ে মারেন।

৩৫ মিনিটের পর ইরান শতভাগ রক্ষণাত্মক ফুটবলে মন দেয়। প্রায় সবাই মিলে ডিফেন্সে এসে স্পেনের আক্রমণ সামলাতে থাকে। স্পেন মাঝমাঠ থেকে আক্রমণ গড়ে প্রতিপক্ষের বক্সের সামনে এসে বারবার খেই হারিয়েছে। এমন রক্ষণাত্মক ফুটবলের সামনে দুর্দান্ত গতির যে ড্রিবলিং দরকার, কেউই সেটা দেখাতে পারেননি।

৪৭তম মিনিটে ডেভিড সিলভা দূরপাল্লার শটে জাল খোঁজার চেষ্টা করেন। ইরান ডিফেন্ডার সেটিও ব্লক করে দেন।

গোলশূন্য প্রথমার্ধের পর দ্বিতীয়ার্ধেও ইরান রক্ষণাত্মক ফুটবলে মন দেয়। সবাই মিলে বক্সের ভেতর ভিড় বাড়িয়ে স্পেনের আক্রমণ ব্লক করতে থাকেন। এর ভেতর ৪৯তম মিনিটে ইসকোর কর্নার থেকে পিকের একটি ফ্লিক অল্পের জন্য গোল হয়নি।

পরের মিনিটে বক্সের বাইরে থেকে বুসকেটস জোরালো শট নেন। ইরান গোলরক্ষক আলিরেজা বায়রানভান্ড সেটি প্রতিহত করেন। সামনে ছিলেন ভাজকুয়েজ। ফিরতি বল প্রায় তার সামনে এসে পড়ে। মাটিতে পড়তে পড়তে আলিরেজা সেটি কোনোমতে বের করে দেন।

ইরানের সব চেষ্টা বৃথা যায় ৫৪তম মিনিটে। বক্সের বাইরে থেকে দারুণ একটি মাটি কামড়ানো পাসে কস্তাকে বল দেন ইনিয়েস্তা। কস্তা ছিলেন বক্সের ভেতর। তিনি শট নিতে যেয়ে ইরানের রামিন রেজাইআনের পায়ে লেগান। বল সেখান থেকে চলে যায় জালে!

এবারের আসরে এটি কস্তার তৃতীয় গোল। স্পেনের হয়ে শেষ ৯ ম্যাচে এই নিয়ে ৯টি গোল করলেন তিনি।

গোল হজম করে ইরান রক্ষণ ছেড়ে উপরে উঠে খেলতে থাকে। ৬২তম মিনিটে হৃদয়ভাঙা মুহূর্ত দেখতে হয় তাদের। মিডফিল্ডার সাঈদ এজাতোলাহি বল জালে পাঠিয়ে উল্লাসে মাতেন। স্পেন অফসাইডের আবেদন জানায়। রেফারি শুরুতে চুপ থাকেন। পরে রিপ্লে দেখে অফসাইডের কারণে গোলটি বাতিল করেন।

৮৩তম মিনিটে ইরানের একটি সুযোগ হাতছাড়া হয়। আমিরি দারুণ একটি ক্রস পাঠান স্পেনের বক্সের ভেতর। পিকেকে বিট করে তারেমি লাফিয়ে উঠে হেডও করেন। অল্পের জন্য সেটি বাইরে দিয়ে চলে যায়।

গ্রুপ পর্বে স্পেনের শেষ ম্যাচ মরক্কোর বিপক্ষে, ২৫ জুন। বাংলাদেশ সময় রাত ১২টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট