‘উনি হয়তো আমাদের ব্যাটিং বা বোলিং করে দেননি কিন্তু পরিবেশ বদলে দিয়েছিলেন’

‘উনি হয়তো আমাদের ব্যাটিং বা বোলিং করে দেননি কিন্তু পরিবেশ বদলে দিয়েছিলেন’

ক্যারিবিয় সফরে বাংলাদেশের শুরুটা হয়েছিল টেস্ট সিরিজ দিয়ে। আর এই সিরিজেই ভরাডুবি হয়েছে সাকিব-তামিমদের। মাত্র ৪৩ রানে অলআউট হয়ে শুরু হয়েছিল এই সফর। কিন্তু শেষটা হয়েছে মুখ ভরা হাসি দিয়ে।

কারণ টেস্ট সিরিজ পর বাংলাদেশ শিবিরে যোগ দিয়েছিলেন ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মোর্তজা। হতাশার সাগরে ডুবে থাকা দলটি ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফির উপস্থিতিতেই বদলে গেল। টেস্টের হারকে পেছনে ফেলে দুই অধিনায়কত্বের অধীনে দুই শিরোপা নিয়েই দেশে ফিরলো টাইগাররা। আর এই হারের চাপ কাটিয়ে দলকে বদলে দেওয়ার অবদানটা ছিল মাশরাফিরই। এমনটাই দাবী করেছেন ওপেনিং ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল।

বৃহস্পতিবার মিরপুরে অনুশীলন গণমাধ্যমকে তামিম ইকবাল জানান, ‘টেস্টের পর আমরা মানসিক ভাবে খুব দুর্বল ছিলাম। আমাদের জন্য ওয়ানডে সিরিজটা ছিল অনেক গুরুত্বপূর্ণ। ওয়ানডেতে দলে এলেন মাশরাফি ভাই। আর আমার মতে দলের পরিবেশ বদলে দিতে উনার অবদানটাই ছিল। উনি হয়তো আমাদের ব্যাটিং বা বোলিং করে দেননি কিন্তু দলের পরিবেশ বদলে দিয়েছিলেন।’

গত কয়েক বছর ধরে ওপেনিং ব্যাটসম্যানের কাজটা বলতে গেলে একাই করছেন তামিম ইকবাল। শুধু তাই নয় সাধ্যমত চেষ্টা করে যাচ্ছেন নিজের ইনিংসটাকে দলের প্রয়োজনে যত বড় করা যায়। কয়েকদিন আগে শেষ হওয়া ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজে এ বাঁহাতি দেখিয়েছেন সেটাই। তারপরও তার ওপেনিং সঙ্গী নিয়ে কোন অভিযোগ নেই তার। বরং অন্য ওপেনারদের সামর্থ্যের ওপর ভরসা রাখছেন এ বাঁহাতি ওপেনার। এ ব্যাপারে বৃহস্পতিবার সংবাদমাধ্যমকে টাইগার ড্যাশিং এ ব্যাটসম্যান বলেন, ‘এটা হতাশার না। হয়ত তাদের সেইরকম পারফরম্যান্স হচ্ছে না। কিন্তু আমি দলে সাথে থেকে জানি, যারাই দলে এই দায়িত্ব পালন করছেন তারা সবাই প্রচণ্ড পরিমাণ চেষ্টা করে। যতটুকু নিজেদের উন্নতি করা দরকার সেটা তারা করছে। হয়ত প্রত্যাশিত ফলাফল পাচ্ছি না। কিন্তু আমার কারো সামর্থ্যের উপর কোনো সন্দেহ নেই। আমার সাথে যে-ই ব্যাট করেছে তারা সবাই যোগ্য, বাংলাদেশের হয়ে অন্তত দশ বছর সার্ভিস দেয়ার জন্য।’

আগামী মাসেই বাংলাদেশ খেলবে এশিয়া কাপে। এরপরই রয়েছে জিম্বাবুয়ে ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে পরপর হোম সিরিজ। সেটা শেষ না হতেই নতুন বছরের শুরুতেই টাইগারদের উড়তে হবে নিউজিল্যান্ডে। যে কারণে বিসিবি এখন থেকেই ওপেনিংয়ে তামিমের সঙ্গী নিয়ে ভাবছে।

অন্য ওপেনার নিজেদের ছন্দে ফিরতে জোর চেষ্টা করছেন। এটা ভাল করেই জানেন তামিম। এজন্য তাদের উপর আস্থা রাখছেন তিনি। তাইতো বৃহস্পতিবার এ বাঁহাতি বললেন, লিটন-সৌম্য-ইমরুলরা কয়েকটি ভাল ইনিংস খেললেই সমস্যা কেটে যাবে। এ ব্যাপারে যেমনটা বলেছেন তামিম, ‘আমার কাছে মনে হয় দুই-একটা ম্যাচ দরকার তাদের, ভালো একটি ইনিংস হলেই ওরা স্থায়ী হয়ে যাবে।’

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট