একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি আবেদন  ২৬ মে

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি আবেদন  ২৬ মে

আগামী ২৬ মে একাদশ শ্রেণীতে শিক্ষার্থী ভর্তিতে দেশের সকল সরকারি-বেসরকারি কলেজে অনলাইন ও এসএমএসে আবেদন শুরু হবে । একজন শিক্ষার্থী সর্বোচ্চ ১০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আবেদন করতে পারবে।

বৃহস্পতিবার ‘২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণীতে ভর্তির নীতিমালা-২০১৬’ জারি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। নীতিমালা অনুযায়ী মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেটের (এসএসসি) ফলাফলের ওপর ভিত্তি করে ভর্তি কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হবে। এ ক্ষেত্রে কোনো ধরনের বাছাই বা ভর্তি পরীক্ষা হবে না।

নীতিমালা অনুযায়ী আগামী ১০ জুলাই থেকে একাদশ শ্রেণির ক্লাস শুরু হবে।চলতি বছর উত্তীর্ণদের পাশাপাশি ২০১৪ ও ২০১৫ সালের উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরাও ভর্তি কার্যক্রমে অংশ নিতে পারবে।

গত বছরের মতো এবারো অনলাইনে হবে ভর্তির কার্যক্রম। একইসঙ্গে টেলিটক মোবাইল ফোন থেকেও ক্ষুদে বার্তার (এসএমএস) মাধ্যমে ভর্তির জন্য আবেদন করা যাবে। একটি প্রতিষ্ঠানের জন্য একবারই আবেদন করা যাবে। সর্বোচ্চ ১০টি প্রতিষ্ঠানে আবেদন করা যাবে।

নীতিমালায় বলা হয়, কোনো কলেজ বা সমমানের প্রতিষ্ঠানে ভর্তির জন্য সংশ্লিষ্ট কলেজ কর্তৃপক্ষ ন্যূনতম যোগ্যতা নির্ধারণ করতে পারবে।

এ ছাড়া নীতিমালায় আরো বলা হয়, বিভাগীয় এবং জেলা সদরের কলেজ/সমমানের প্রতিষ্ঠানে ভর্তির ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কলেজ/সমমানের প্রতিষ্ঠানের ৮৯ শতাংশ আসন সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। অবশিষ্ট আসনের মধ্যে পাঁচ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধার সন্তান/সন্তানের সন্তানদের জন্য, তিন শতাংশ বিভাগীয় এবং জেলা সদরের বাইরের শিক্ষার্থীদের জন্য, দুই শতাংশ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধঃস্তন দপ্তরসমূহ এবং উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কর্মরত কর্মকর্তা, শিক্ষক, কর্মচারী ও গভর্নিং বডির সদস্যদের সন্তানদের জন্য, শূন্য দশমিক পাঁচ শতাংশ বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য এবং শূন্য দশমিক পাঁচ শতাংশ প্রবাসীদের সন্তানদের জন্য সংরক্ষিত থাকবে। মুক্তিযোদ্ধার সন্তান/সন্তানের সন্তানদের শনাক্তকরণের জন্য মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে প্রদত্ত সনদপত্র দাখিল করতে হবে।

ফি সংক্রান্ত তথ্য: অনলাইনে বা টেলিটক মোবাইল ফোন এসএমএসের মাধ্যমে আবেদন করার ক্ষেত্রে ফি হিসেবে জমা দিতে হবে ১৫০ টাকা।

ভর্তি হওয়ার সময় মফস্বল/পৌর (উপজেলা) এলাকায় ফি হিসেবে এক হাজার টাকা, পৌর (জেলা সদর) এলাকায় দুই হাজার টাকা এবং ঢাকা ছাড়া অন্যান্য মেট্রোপলিটন এলাকায় তিন হাজার টাকার বেশি নেওয়া যাবে না।

ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানে ফি হিসেবে পাঁচ হাজার টাকার বেশি নেওয়া যাবে না। এমপিওভুক্ত বা এমপিও বহির্ভূত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন এবং এমপিও বহির্ভূত শিক্ষকদের বেতন-ভাতা প্রদানের জন্য ভর্তি ফি হিসেবে বাংলা মাধ্যমে সর্বোচ্চ ৯ হাজার টাকা এবং ইংরেজি মাধ্যমে সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা নেওয়া যাবে।

নির্দিষ্ট সময়: একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির অনলাইন ও এসএমএস আবদেন গ্রহণের সময় ২৬ মে থেকে ৯ জুন পর্যন্ত। ভর্তির জন্য মনোনীত শিক্ষার্থীদের তালিকা প্রকাশ করতে হবে ১৬ জুন। ভর্তির তারিখ ১৮ জুন থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত।

সম্পর্কিত সংবাদ
নিজস্ব প্রতিবেদক