এত দিন যে ভাবে সূচে সুতো পড়াতেন সেটা ভুল! দেখুন ভিডিও

এত দিন যে ভাবে সূচে সুতো পড়াতেন সেটা ভুল! দেখুন ভিডিও

মনে পড়ছে স্কুলের ক্রীড়া প্রতিযোগিতার দিনগুলো? বাড়িতে হাজার অনুশীলনের পরও বারবারই হাতছাড়া হয়ে যেত পুরস্কার। কারণ বারবারই গলছে গলছে করেও সূচের সরু ফুটো দিয়ে সুতোটাকে আর গলানো যেত না। বা তাড়াহুড়ো করে বেরনোর সময় জামার বোতাম সেলাই করতে গেলেন, আর অনেক চেষ্টার পর সূচে সুতো পড়াতে পারলেন। ততক্ষণে ঘড়ির কাঁটা অবশ্য অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছে। সূচে সুতো পড়ানো নিয়ে এই ধরনের অভিজ্ঞতা কম-বেশি আমাদের সকলেরই। কিন্তু একটু বুদ্ধির ব্যবহারে খুব সহজেই সূচে সুতো পড়ানো যায়। যা আমরা অনেকেই জানি না।

সম্প্রতি সূচে সুতো পরানোর সহজ একটি কৌশল ভাইরাল হয়েছে। জন বিক নামে এক টুইটার ব্যবহারকারী সূচে সুতো পড়ানোর একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন। তার ক্যাপশনে জন লিখেছেন, ‘সবচেয়ে খারাপ লাগবে যখন জানবেন এতদিন ধরে আপনি একটা ভুল পদ্ধতি অনুসরণ করছিলেন।’ শেয়ারের পরই ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। এখনও পর্যন্ত ৩৫ হাজার রিটুইট এবং ৭১ হাজার লাইক পড়েছে ভিডিওটিতে।

কী সেই সহজ কৌশল?

ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, হাতের তালুতে সুতো রেখে তার উপর সূচের ছিদ্রের অংশ রেখে কিছু ক্ষণ আঙুল দিয়ে হালকা ভাবে ঘষছেন এক মহিলা। আর ম্যাজিকের মতো সুতো ওই ছিদ্রের মধ্যে প্রবেশ করল। এর জন্য হাত পরিষ্কার এবং শুকনো হওয়া উচিত। বা এই কৌশল প্রয়োগ করার জন্য যে জায়গা বেছে নেবেন তা পরিষ্কার এবং শুকনো হতে হবে। তা যেন খুব নরম এবং খুব বেশি মসৃণ না হয়।

দেখুন ভিডিও:

ভিডিওটি দেখে এবং এর প্রয়োগ করে খুশি টুইটার ব্যবহারকারীরা। তাঁদের একজন মন্তব্য করেন, “এই ম্যাজিকটা জীবনের অনেকগুলো বছর বাঁচিয়ে দিত।’’ একজন লেখেন, “ইন্টারনেট সঙ্গে রাখার এটাই কারণ।” অর্থাৎ ভিডিওটিকে মুশকিল আসান বলতে চেয়েছেন তিনি।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট