এবার মহাশূন্যে তৈরি হবে বিলাসবহুল হোটেল

এবার মহাশূন্যে তৈরি হবে বিলাসবহুল হোটেল

এবার আপনার যদি মনে হয় কয়েকদিনের ছুটিতে একটু মহাকাশ ঘুরে আসি তাহলে চিন্তা নেই লোকে আপনাকে পাগল বলবেনা৷ ইচ্ছে হলেই কয়েকদিন হাতে নিয়ে ঘুরে আসতেই পারেন অন্তরীক্ষে৷ বিলাসবহুল হোটেলে মহাশূন্যে ভাসতে ভাসতে দেখতে পারেন সূর্যদয়৷ তবে তার জন্য খরচ করতে হবে৷

যদি আপনার মনে হয় ভিডিওতে কেন? নিজেই দূর থেকে চাক্ষুষ করব পৃথিবীকে তাহলেও আপনার মনস্কামনা পূরণ হতে পারে৷ নিজের চোখে দেখে আসতে পারেন ঠিক কেমন লাগে৷ আপনার সেই সব অলিক কল্পনা বা স্বপ্ন এবার বাস্তবেই পূরণ হবে৷ অন্তরীক্ষে খুব শীঘ্রই হোটেল নির্মাণ হতে চলেছে৷ সেখান থেকে বারবার সূর্য ওঠা দেখতে পারবেন হোটেলে বেড়াতে যাওয়া অতিথিরা৷ ইউএস এর কোম্পানি ওরিয়ন স্পেন দুনিয়ায় সবার প্রথম অন্তরীক্ষে বিলাসবহুল হোটেল খুলছে৷ মার্কিন এই সংস্থাটি চার বছরের মধ্যেই মহাশূন্যে ভাসমান এই হোটেলটি তৈরি করে ফেলবে৷ হোটেলটির নামকরণও হয়ে গিয়েছে৷ নাম দেওয়া হয়েছে অরোরা স্টেশন৷

তবে হাতে আপনাকে ১২ দিন সময় নিয়ে বেরোতে হবে৷ কারণ আমেরিকি ওই সংস্থা জানিয়েছে ১২ দিনের ওই ট্যুরে থাকবে ৪জন ট্রাভেলর ও ২জন ক্রু মেম্বার৷ তবে এর জন্য আপনাকে খরচ করতে হবে ৯.৫ মিলিয়ন ডলার৷ প্রায় ৬১ কোটি টাকা৷ এরমধ্যে ৮০ হাজার ডলার আপনাকে অনলাইন জমা করতে হবে৷ যেটা অবশ্য রিফান্ডেবল৷ অর্থাৎ ফেরতযোগ্য৷

অরোরা স্টেশন যাত্রীদের জন্য বেশ রাজকীয় ব্যাপার হবে বলে মনে করা হচ্ছে৷ এই ভাসমান হোটেলটি প্রতি ৯০ মিনিটে পৃথিবীর এক চক্কর কাটবে৷ তার মানে যাত্রীরা প্রতি ২৪ঘন্টায় ১৬ বার সূর্যোদয় ও সূর্যাস্ত দেখতে পাবেন৷ বিনা মাধ্যাকর্ষণ শক্তিতে এই হোটেল চার বছর ধরে নির্মাণ করা হবে৷ ২০২২ এর মধ্যেই তৈরি হয়ে যাবে এই হোটেল৷ এরপরই মহাকাশে ভাসতে ভাসতে এই হোটেলের আনন্দ নিতে পারবেন যাত্রীরা৷ এই হোটেলে ৫ স্টার হোটেলের পরিষেবা পাওয়া যাবে বলেই খবর৷ বেড়াতে গিয়ে হয়ত দেখা হয়ে গেল এলিয়নের সঙ্গেও৷ কে বলতে পারে!

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট