এবার কুকিং অয়েলেই চলবে গাড়ি

এবার কুকিং অয়েলেই চলবে গাড়ি

কুকিং অয়েল ছাড়া রান্নাঘর অসম্পূর্ণ৷ আর, এই কুকিং অয়েলই এবার চলবে গাড়ি৷ অবাক হলেন নাকি? হ্যাঁ, রান্নাঘরের এই গুরুত্বপূর্ণ উপাদানটিই হতে পারে পেট্রল, ডিজেলের বিকল্প৷ কিছুদিন আগেই বিমান ওড়ানোর কাজে ব্যবহার করা হয়েছে জৈব জ্বালানিকে৷ নিত্যদিনের ব্যবহৃত কুকিং অয়েলকে জৈব জ্বালানিতে পরিবর্তিত করার উদ্যোগটি নিয়েছে দেরাদুনের ইণ্ডিয়ান ইন্সটিটিউট অফ পেট্রোলিয়াম৷ আর, এই জৈব জ্বালানিই এবার গাড়ি, বিমান চালাতে সাহায্য করবে৷

ইতিমধ্যেই ব্যবহারিক কুকিং অয়েল থেকে তৈরি জৈব জ্বালানি ব্যবহার করছে ফাস্ট ফুড সংস্থা McDonald’s৷ রির্পোটের তথ্য জানাচ্ছে, উদ্যোগটি ফাস্ট ফুড সংস্থাটিকে ৩৫,০০০ লিটার ব্যবহৃত কুকিং অয়েলকে বায়ো ডিজেলে পরিবর্তিত করতে সাহায্য করছে৷ যার ফলে বার্ষিকভাবে ৪২০,০০০ লিটার অপরিশোধিত তেল বাঁচানো সম্ভব হয়েছে৷ সম্প্রতি, খাদ্য নিয়ন্ত্রক FSSAI সমস্ত খাবারের দোকানগুলিকে কুকিং অয়েলকে পুনরায় ব্যবহার করতে নিষেধ করছে৷ পরিবর্তে সেগুলিকে জৈব জ্বালানি নির্মাতাদের কাছে সরবরাহ করার নির্দেশ দিচ্ছে৷

উদ্ভিজ তেল, চর্বি জাতীয় পদার্থ, শেওলা থেকে উৎপন্ন হতে পারে জৈব জ্বালানি৷ একইভাবে জীবাশ্ম জ্বালানির বিকল্প হিসেবে ব্যবহৃত হতে পারে পশুজাত ফ্যাট৷ জীবাশ্ম জ্বালানির নির্ভরতা কমাতে ভারত জৈব জ্বালানির প্রচার করছে৷ সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি “ন্যাশনাল পলিশি অন বায়োফুয়েলস ২০১৮ ” সামনে এনেছেন৷ যেখানে তিনি আগামী চার বছরে তিনগুণ বেশি ইথানল উৎপাদনের কথা বলেছেন৷ যেটি ভারতের তেল আমদানির বিলকে অনেকাংশে কমাতে সাহায্য করবে৷

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট