এশিয়া কাপের ফাইনালে মাতাল ছিলেন রবি শাস্ত্রী

এশিয়া কাপের ফাইনালে মাতাল ছিলেন রবি শাস্ত্রী

এশিয়া কাপের ১৪তম আসরের পর্দা নেমেছে আরো তিনদিন আগেই। রোমাঞ্চকর ফাইনালে শেষ বলে বাংলাদেশের বিপক্ষে ৩ উইকেটের জয় তুলে নিয়ে এশিয়ান ক্রিকেটের শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট মাথায় দেয় ভারত। ইতোমধ্যে দেশে ফিরেছে ভারতীয় দল। অধিনায়ক থেকে শুরু করে খেলোয়াড়রা প্রশংসার ভাসছেন। ব্যতিক্রম ভারতীয় জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রধান কোচ রবি শাস্ত্রী। ফাইনালের পর থেকেই অনেকের ব্যঙ্গ-বিদ্রুপের শিকার হচ্ছেন শাস্ত্রী।

তাকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে চলছে ভারতীয় সমর্থকদের তুমুল হাসি-তামাশা। ঘটনার সূত্রপাত, এশিয়া কাপের ফাইনালের দিন। বাংলাদেশের দেয়া ২২৩ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শেষ বলে জয় তুলে নেয়ার পর ধারাভাষ্যকার কেভিন পিটারসেন সাক্ষাৎকার নিতে ডাকেন শাস্ত্রীকে। টিভি পর্দায় তখন দেখানো হচ্ছিল, পিটারসন ও ভারতীয় কোচের সেই সাক্ষাৎকার। এ সময় শাস্ত্রীকে দেখে মনে হচ্ছিল মদ্যপান করেছেন তিনি।  ওই সাক্ষাতকারের একটি স্ক্রিনশট মুহূর্তেই ছড়িয়ে পরে নেট দুনিয়ায়। শুরু হয় তুমুল ঠাট্টা-তামাশা, যা এশিয়া কাপের পর্দা নামার তিনদিন পরও থামেনি। শাস্ত্রীকে মাতাল ভেবেই সামাজিক যোগাযোগেরমাধ্যমগুলো ছেয়ে গেছে কাল্পনিক কথোপকথন ও সরস মন্তব্যে। কেউ কেউ  বলছেন, সে সময় পিটারসেন জিজ্ঞেস করেছিলেন, ম্যাচের কোন শটটা সব থেকে ভাল ছিল। জবাবে শাস্ত্রী নাকি বলছেন, ওই যে যেটা রাহুল শেষ বার বানিয়ে দিল। আবার আরেকটি কথোপকথন দেখা যায় এরকম – পিটারসন জিজ্ঞেস করেছেন, কেমন বোধ করছেন শাস্ত্রী? জবাবে ভারতীয় কোচ বলছেন, বমি বমিও লাগছে। আবার আরেকটি কথোপকথন ছিল এমন – পিটারসন বলছেন, অসাধারণ একটি ফাইনাল ছিল।

জবাবে শাস্ত্রী বলেন, তাই নাকি? হাইলাইটস দেখতে হবে তাহলে। এ ছাড়া নানা ধরনের ক্যাপশনও দেখা গেছে শাস্ত্রী-পিটারসনের সেই ছবি নিয়ে। চার বোতল ভদকা (হিন্দি গান) গানের দৃশ্যে ভারতীয় কোচ রবি শাস্ত্রী। কেউ কেউ লিখেছেন, ফাইনাল জেতার আগেই পার্টি শুরু করে দিয়েছিলেন শাস্ত্রী। আবার কেউ লিখেছেন, ইংল্যান্ড সফরে টেস্ট সিরিজ হারার দুঃখে বোতল থেকে মুখই সরাতে পারেননি তিনি।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট