কাজ পেতেপুরুষরাও নিজেদের শরীর বিলিয়ে দেন

কাজ পেতেপুরুষরাও নিজেদের শরীর বিলিয়ে দেন

যৌনশোষণের দায় কোনও দিনই ঝেড়ে ফেলতে পারেনি গ্ল্যামার দুনিয়া। সাম্প্রতিক হার্ভে ওয়েনস্টাইন কেলেঙ্কারি তা আরো নগ্ন করে প্রকাশ্যে এনে দিয়েছে। হলিউডের #MeToo বিপ্লবের আঁচ এসে পড়েছে বলিউডেও। তবে কেবল মাত্র প্রযোজক কিংবা পরিচালকরাই কি দোষী?

এমন প্রশ্নের মুখেই আলোচনাসভায় পড়তে হয়েছিল একতা কাপুরকে। স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গীতেই টেলভিশন ক্যুইন জানিয়ে দেন, “সমস্ত দোষ প্রযোজক-পরিচালকের হয় না। অভিনেতা-অভিনেত্রীরাও কাজ পেতে শারীরিক সম্পর্কে জড়ায়।”

এক সংবাদমাধ্যমের পক্ষ থেকেই এই আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়েছিল। যেখানে একতার পাশে হাজির ছিলেন অভিনেত্রী নিমরত কউর। তাঁর সামনেই একতাকে প্রশ্নটি করেন বরখা দত্ত। যাঁর উত্তরে একতা জানান, কেবলমাত্র কেউ ইন্ডাস্ট্রিতে ভাল জায়গায় রয়েছে বলেই কাউকে দোষারোপ করা উচিত নয়। অভিনেতা-অভিনেত্রীরাও কাজ পেতে নিজেদের শরীরকে ব্যবহার করেন।

ধরা যাক, একজন উঠতি অভিনেতা কিংবা অভিনেত্রী কোনও প্রযোজক কিংবা পরিচালকের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হয়েছেন। এক সপ্তাহ পর সেই অভিনেতা অথবা অভিনেত্রী যদি এই সম্পর্কের বিনিময়ে কাজ চান, আর উল্টো দিকের মানুষটা যদি কেবল শারীরিক সম্পর্কের বিনিময়ে তা দিতে না রাজি হন তখনই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে অভিযোগ ওঠে। এ বিষয়টি অনেকটা মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠের মতো বলেই মনে করেন একতা।

প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই ধর্ষণের মতো মারাত্মক অভিযোগ ওঠে একতার বাবা তথা বর্ষীয়ান বলিউড অভিনেতা জিতেন্দ্র বিরুদ্ধে। অভিযোগটি আনেন অভিনেতারই এক ভাইজি।

তাঁর দাবি ছিল, ২৮ বছর বয়সে জিতেন্দ্র তাঁকে ধর্ষণ করেন। কিন্তু তখন পারিবারিক লজ্জার কথা ভেবে তিনি প্রতিবাদ জানাতে পারেননি। তাই ৬৫ বছর বয়সে নিজের নিগ্রহের বিরুদ্ধে সরব হলেন। যদিও যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে জিতেন্দ্রর তরফে। একতার কথার সুরেও যেন প্রচ্ছন্নভাবে সেই বার্তাই শোনা গেল।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট