‘কোহলির মতো করলে আমাদের বলা হতো পৃথিবীর নিকৃষ্ট মানুষ’!

‘কোহলির মতো করলে আমাদের বলা হতো পৃথিবীর নিকৃষ্ট মানুষ’!

অ্যাডিলেডে কাল দ্বিতীয় দিনে অ্যারন ফিঞ্চ আউট হওয়ার পর উন্মাতাল উদ্‌যাপন করেছেন ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। এ নিয়ে কথা বলেছেন অস্ট্রেলিয়ার কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার। এ ছাড়া শচীন টেন্ডুলকারের সমালোচনার জবাবও দিয়েছেন অস্ট্রেলিয়া কোচ।

অস্ট্রেলিয়ায় ক্যারিয়ারের প্রথম সফরে এসে মেজাজ হারিয়ে বিতর্ক ছড়িয়েছিলেন বিরাট কোহলি। এবার এখনো পর্যন্ত তেমন কিছু না ঘটলেও কোহলিকে নিয়ে কথা হচ্ছেই। অ্যাডিলেডে কাল টেস্টের দ্বিতীয় দিনে অ্যারন ফিঞ্চ আউট হওয়ার পর উন্মাতাল উদ্‌যাপন করেছেন ভারতীয় অধিনায়ক। এ নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গারের মন্তব্য, অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা একইভাবে উইকেট পতন উদ্‌যাপন করলে তাদের ‘দুনিয়ার সবচেয়ে খারাপ ছেলে’ হিসেবে মনে করা হতো।

কাল প্রথম ইনিংসের প্রথম ওভারেই ফিঞ্চকে হারিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। ইশান্ত শর্মার অফ স্টাম্পের বাইরের বল ড্রাইভ করতে গিয়ে স্টাম্পে টেনে নেন ফিঞ্চ। তাঁর ব্যাটের কানা ছুঁয়ে দুটি স্টাম্প উপড়ে ফেলে বল। এতে ইশান্ত যতটা খুশি হয়েছেন, কোহলি যেন সেটিকেও ছাপিয়ে যান! দুটো হাত মুষ্টিবদ্ধ ভঙ্গিতে লাফিয়ে উইকেট পতন উদ্‌যাপন করেন তিনি। এ সময় তাঁর মুখভঙ্গি ছিল দেখার মতো। শক্ত চোয়াল আর তীক্ষ্ণ চাহনি। কোহলির এই উদ্‌যাপন বেশ আলোচনার জন্ম দেয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

ফক্স স্পোর্টসের সঙ্গে আলাপচারিতায়, ক্রিকেটের প্রতি কোহলির ভালোবাসার প্রশংসা করেছেন ল্যাঙ্গার। এর পাশাপাশি অস্ট্রেলিয়ান কোচ এ কথাও মনে করিয়ে দেন, একই উদ্‌যাপন তাঁর শিষ্যরা করলে সেটি ভালো চোখে দেখা হতো না। ল্যাঙ্গার বলেন, ‘খেলাটির প্রতি (কোহলির) এই ভালোবাসা দেখতে ভালো লাগে, তাই না? তবে এটাও মনে রাখতে হবে, একই উদ্‌যাপন আমরা করলে দুনিয়ার সবচেয়ে খারাপ ছেলে হিসেবে মনে করা হতো। এটাই পার্থক্য, এটাই সত্য। এমন ভালোবাসা দেখতে ভালো লাগে তবে পার্থক্যটাও মনে রাখতে হবে।’

প্রথম ইনিংসে ভারতের ২৫০ রানের জবাবে ৭ উইকেটে ১৯১ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিন শেষ করেছিল অস্ট্রেলিয়া। আজ তৃতীয় দিনে ২৩৫ রানেই অলআউট হয়েছে দলটি। অস্ট্রেলিয়া দলের ‘অতি রক্ষণাত্মক ব্যাটিং’-এর সমালোচনা করেছেন ভারতীয় কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকার। তাঁর টুইট, ‘ভারতের উচিত সুযোগের পূর্ণ সদ্ব্যবহার করা। ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানরা যে রক্ষণাত্মক মানসিকতা দেখাচ্ছে তা আমি কখনো দেখিনি।’

টেন্ডুলকারের এই সমালোচনার জবাবও দিয়েছেন ল্যাঙ্গার, ‘শচীন অ্যালান বোর্ডার, ডেভিড বুনদের দলের বিপক্ষে টেস্ট খেলা শুরু করে স্টিভ ওয়াহ, মার্ক ওয়াহ ও রিকি পন্টিংদের বিপক্ষেও খেলেছে। তারা নিজেদের খেলাটা জানত। কিন্তু আমরা এখন যে দলটা খেলাচ্ছি তারা অনভিজ্ঞ, বিশেষ করে ব্যাটিং অর্ডার। তারা নিজেদের ঘরের মাঠেই লড়াই করছে।’

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট