খালেদা জিয়ার সাজা কেন বাড়বে না, জানতে চেয়ে হাইকোর্টের রুল জারী

খালেদা জিয়ার সাজা কেন বাড়বে না, জানতে চেয়ে হাইকোর্টের রুল জারী

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাজা কেন বৃদ্ধি করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট।

বুধবার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের হাইকোর্টের বেঞ্চ খালেদা জিয়ার সাজা বৃদ্ধি চেয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের আপিল আবেদন গ্রহণের শুনানি শেষে এ রুল জারী করেন।

বেগম খালেদা জিয়া এবং সরকারকে আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে এ  রুলের  জবাব দিতে বলা হয়েছে। শুনানিকালে দুদকের আইনজীবী অ্যাডভোকেট খুরশিদ আলম খান আদালতকে বলেন, এ মামলায় প্রধান আসামিকে কম সাজা দেয়া হয়েছে। অন্যদের বেশি দেয়া হয়েছে। সবারই সমান সাজা হওয়া উচিত।

অন্যদিকে খালেদা জিয়ার পক্ষে আইনজীবীরা আদালতকে বলেন, দুদক আইন একটি বিশেষ আইন। এ আইনে ন্যূনতম সাজা হলেও সাজা বৃদ্ধি চাওয়ার এখতিয়ার দুদকের নেই। তাদের এ আবেদন এখতিয়ারবহির্ভূত। তাই এ আবেদন খারিজ করা হোক। পরে আদালত বলেন, এখানে যেহেতু নতুন একটি প্রশ্নের অবতারণা হয়েছে তাই রুল জারি করে শুনানি করি। আমরা শুনানিতে উভয়পক্ষের বক্তব্য ভালো করে শুনব। সাজা বাতিল চেয়ে খালেদা জিয়ার আপিল আবেদনের শুনানির সাথে এ রুলেরও শুনানি হবে।

এদিকে, মামলার শুনানিতে আজ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করার কথা ছিল। তবে, শারীরিক অসুস্থতার কারণে খালেদা জিয়াকে আজ আদালতে হাজির করা হয় নি। খালেদা জিয়ার আইনজীবী সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন  রেডিও তেহরানকে বলেন, তারা বেগম জিয়ার শারিরিক অবস্থা নিয়ে শঙ্কিত।

উল্লেখ্য, গত ১৯ মার্চ খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন আদেশ আগামী ৮ মে পর্যন্ত স্থগিত করেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে চার বিচারপতির আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চ।

একই সাথে জামিন আদেশের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ও রাষ্ট্রপক্ষকে আপিলের অনুমতি দেন আদালত। এ ছাড়া আগামী ৮ মে ওই আপিল আবেদনের ওপর শুনানির তারিখ ধার্য করা হয়।

সম্পর্কিত সংবাদ
নিজস্ব প্রতিবেদক