খাশোগিকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে হত্যার কথা স্বীকার করল সৌদি আরব

খাশোগিকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে হত্যার কথা স্বীকার করল সৌদি আরব

সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে স্বীকার করেছে সৌদি আরব।গতকাল (বৃহস্পতিবার) সৌদি সরকারি কৌঁসুলি সৌদ বিন আব্দুল্লাহ আল মোয়াজেব এ কথা স্বীকার করেছেন।

তিনি এক বিবৃতিতে বলেন, তুরস্ক থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে এ ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া গেছে যে, তার হত্যাকাণ্ড পূর্বপরিকল্পিত। খাশোগিকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে তুরস্ক দৃঢ়তার সঙ্গে ঘোষণা দেওয়ার পর এ স্বীকারোক্তি দিল সৌদি সরকার।

তুরস্কের প্রেসিডেন্টও বলেছেন, তারা হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে নীরব থাকবে না।

খাশোগি নিখোঁজ হওয়ার পর বিষয়টির সঙ্গে সৌদির কোনো সম্পর্ক নেই বলে প্রচার চালায় রিয়াদ। এরপর তুরস্ক নানা তথ্য-প্রমাণ তুলে ধরায় সৌদি আরব এক বিবৃতিতে তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেট ভবনের ভেতরেই খাসোগির মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে। তবে ব্যাখ্যা দেওয়া হয়েছিল, কনস্যুলেট ভবনে কয়েকজন সৌদি নাগরিকের সঙ্গে ‘হাতাহাতির’ ঘটনায় মারা যান খাশোগি।

ওই বিবৃতি নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে ‘হাতাহাতির সময় মৃত্যু’ থেকে সরে আসে তারা। বিবৃতিতে বলা হয়, খাশোগিকে হত্যা করা হয়েছে, তবে তা পূর্বপরিকল্পিত নয়। এ ব্যাখ্যাও ধোপে টেকেনি। এখন সৌদি কর্তৃপক্ষ বলছে যে খাশোগিকে ভেবেচিন্তেই খুন করা হয়েছে।

অভিযোগ রয়েছে, যুবরাজের নির্দেশে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় খাশোগিকে হত্যা করা হয়েছে। গত বছর যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান সৌদি আরবের ক্ষমতার কেন্দ্রে আসার পর থেকে রোষানলে পড়েন ৫৯ বছর বয়সী খাশোগি।

তিনি দেশ ছেড়ে স্বেচ্ছা নির্বাসনে আমেরিকায় চলে যান। মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্ট-এ যুবরাজের কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করে একের পর এক কলাম লিখেছিলেন খাশোগি।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট