‘খাশোগি হত্যায় সৌদি যুবরাজ জড়িত থাকতে পারেন’: ট্রাম্পের নয়া উপলব্ধি

‘খাশোগি হত্যায় সৌদি যুবরাজ জড়িত থাকতে পারেন’: ট্রাম্পের নয়া উপলব্ধি

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রথমবারের মতো স্বীকার করেছেন, সৌদি রাজতন্ত্র-বিরোধী সাংবাদিক জামাল খাশোগির হত্যাকাণ্ডে যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমানের হাত থাকতে পারে।

মার্কিন দৈনিক ওয়াল স্ট্রিট জার্নালকে দেয়া ট্রাম্পের এক সাক্ষাৎকারের উদ্ধৃতি দিয়ে ব্রিটিশ দৈনিক গার্ডিয়ান এ খবর জানিয়েছে।

গত ২ অক্টোবর তুরস্কের ইস্তাম্বুলস্থ সৌদি কনস্যুলেটে খাশোগির নিহত হওয়ার ব্যাপারে এটি মার্কিন প্রেসিডেন্টের অবস্থানে বড় রকমের পরিবর্তন বলে আভাস পাওয়া যাচ্ছে। এর আগে ওই হত্যাকাণ্ডের ব্যাপারে সৌদি আরব যেসব উল্টাপাল্টা ব্যাখ্যা দিয়ে যাচ্ছিল সেগুলোকেই আমলে নিচ্ছিলেন ট্রাম্প।

কিন্তু এবার তিনি দৃশ্যত এটাই বোঝালেন খাশোগি হত্যাকাণ্ডে সৌদি আরবের সবচেয়ে প্রভাবশালী ব্যক্তি যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমানকে নিয়ে আর ঘোরের মধ্যে থাকতে চান না।

ভিন্ন মতাবলম্বী সাংবাদিক খাশোগি হত্যাকাণ্ডে সৌদি যুবরাজের জড়িত থাকার ব্যাপারে ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক প্রশ্নের উত্তরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, “এই মুহূর্তে মনে হচ্ছে, রিয়াদে বসে সবকিছু পরিচালনা করছেন যুবরাজ। তিনি যেহেতু কলকাঠি নাড়ছেন সুতরাং যদি (এ হত্যাকাণ্ডে) কারো হাত থেকে থাকে তাহলে তিনিই হবেন সেই ব্যক্তি।”

ট্রাম্পের এ সাক্ষাৎকার এমন সময় প্রকাশিত হলো যখন তুরস্কের একটি সরকার-পন্থি পত্রিকা খবর দিয়েছে, খাশোগি হত্যাকাণ্ডের বহুল আলোচিত ভিডিও ও অডিও টেপগুলো বাজিয়ে শুনেছেন দেশটি সফররত মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ’র পরিচালক গিনা হাসপেল।

এতদিন বিভিন্ন সূত্রে খাশোগি হত্যার তথ্য পেলেও এবার সিআইএ প্রধানের মূল্যায়ন শোনার পরই ট্রাম্প সৌদি যুবরাজ সম্পর্কে নিজের অবস্থান পরিবর্তন করলেন বলে মনে করা হচ্ছে।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট