গেইল-রাসেলদের আচরণে ক্ষুব্ধ সাবেক ক্যারিবীয় অধিনায়ক

গেইল-রাসেলদের আচরণে ক্ষুব্ধ সাবেক ক্যারিবীয় অধিনায়ক

ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের সিনিয়র ক্রিকেটারদের গা-ছাড়া মনোভাব দেখে লজ্জিত সাবেক ক্যারিবীয়ান অধিনায়ক কার্ল হুপার। দেশের জার্সিতে না খেলে ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে তাদের মনোনিবেশ করতে দেখে ক্ষুব্ধ তিনি।

টেস্ট, ওয়ানডে-তে বাজেভাবে হারের পরে টি-টোয়েন্টির প্রথম ম্যাচেও পাঁচ উইকেটে হারলেন কার্লোস ব্রাথওয়েটরা। যা দেখে হুপার বলেন, ‘‘আমাদের দলের এই অবস্থার জন্য দায়ী আমাদের সিনিয়র ক্রিকেটারেরা। দেশের হয়ে খেলতে না চাওয়ার কারণেই এই অবস্থা দলের। ওদের মনোভাব দেখে আমি সত্যি লজ্জিত। চারজন প্রথম দলের ক্রিকেটারকে আমরা এই ম্যাচে পাইনি। ক্রিস গেইল, আন্দ্রে রাসেল, এভিন লুইস, সুনীল নারাইনেরা থাকলে ম্যাচটা অন্য মাত্রায় যেতে পারত।’’

তিনি আরো বলেন, ‘‘শুধু খেলার জন্য নেমে কী লাভ! জেতার জন্য খেলতে নামুক। হতে পারে রাসেলের চোট, কিন্তু বাকিরা কোথায়?’’

হুপার জানান, ভারতের কাছে হারের আরো বড় একটি কারণ কুলদীপ যাদবকে বুঝতে না পারা। হুপারের কথায়, ‘‘কুলদীপ অসাধারণ। ওর গুগলিটা বোঝাই যায় না। আমি বুঝতে পারছি না, টেস্ট ও ওয়ানডে-তে ওকে খেলার পরেও কীভাবে এখনও বুঝে উঠতে পারছে না আমাদের ক্রিকেটারেরা। দিনের পর দিন ওর হাতেই আত্মসমর্পণ করছে আমাদের ব্যাটসম্যানেরা। ওকে খেলার আরো ভাল উপায় বের করা উচিত।’’

তা হলে ওকে সামলানোর উপায় কি? হুপারের উত্তর, ‘‘রক্ষণাত্মক খেলতে হবে। বুঝতে হবে, কোনটা গুগলি আর কোনটা লেগস্পিন। শুধু ব্যাট চালালেই হয় না। টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন দলের থেকে এটা তো আশা করাই যায়।’’

ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের বর্তমান অবস্থা দেখেও ক্ষুব্ধ তিনি। হুপারের বক্তব্য, ‘‘আমাদের টেস্ট দল শক্তিশালী নয়, আমাদের ওয়ানডে দল শক্তিশালী নয়, শেষ আশা ছিল টি-টোয়েন্টি দল। তাদেরও এই অবস্থা। তা হলে কাদের উপর নির্ভর করব!’’

তবে বিশ্বকাপে তার দেশ কী করবে তা নিয়ে এখনই মন্তব্য করতে চান না হুপার। তিনি বলেন, ‘‘বিশ্বকাপের আগে আমাদের ঠিক দলটি বেছে নিতে হবে। আমি জানি, শেই হোপ অত্যন্ত ভাল ব্যাটসম্যান। কিন্তু টি-টোয়েন্টি ফর্ম্যাটের জন্য আদর্শ মনে হয় না। বিশ্বকাপে এই দল নির্বাচনই পার্থক্য গড়ে দেবে। কে বলতে পারে, ভালো দলগঠন করা হলে আমরা চ্যাম্পিয়নও হতে পারি।’’

দল জিততে না পারলেও তরুণ পেসার ওশেন থমাসের পারফরম্যান্সে তিনি মুগ্ধ। চার ওভারে ২১ রান দিয়ে দুই ভারতীয় ওপেনারকে ফিরিয়ে দেন তিনি। থমাসের ভবিষ্যৎ যে উজ্জ্বল, সে বিষয়ে কোনো সন্দেহই নেই হুপারের। তিনি বলেন, ‘‘আমাদের দলে যে প্রতিভার অভাব নেই তা প্রমাণ করেছে থমাস। ওর বল খেলতে অসুবিধা হচ্ছিল প্রত্যেকের। ভবিষ্যতে ওর মধ্যে বড় পেসার হওয়ার সম্ভাবনা দেখছি।’’

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট