ছেলে সন্তান হওয়ার আগে গর্ভবতীর পেটের লক্ষণ

ছেলে সন্তান হওয়ার আগে গর্ভবতীর পেটের লক্ষণ

আপনি যদি গর্ভবতী হন,তাহলে নিজের গর্ভের সন্তানের লিঙ্গ জানার কৌতুহল প্রবল হয়।প্রতিটি গর্ভবতী স্ত্রী নানারকম ভাবে সন্তান ছেলে না মেয়ে বোঝার চেষ্টা করে।এটা মানা হয় যদি পেটটা যদি ছোট দেখায়,সম্ভাবনা বেশি ছেলে হওয়ার।

অনেকে আবার নাভির ধরণ দেখে বা তলপেটের নিচ থেকে পেট অবধি হওয়া কাল দাগটা দেখে বোঝার চেষ্টা করে ছেলে হবে কি না।আমরা এই প্রশ্নের উত্তর দিতে পারি -“আমার পেটের সন্তান কি ছেলে না মেয়ে?”।হ্যাঁ,এটা কিছুটা অন্তত বলা যায়, যদিও হয়ত সেগুলো বিঞ্জান সম্মত উপায় নয়!

উঁচু বনাম নিচু

এটা বহু পুরোনো দাইমাদের গল্প।আপনার গর্ভে যদি ছেলে বাচ্চা থাকে তাহলে ভুঁড়িটা নিচের দিকে ঝুলে যাবে।যদি সন্তান হয় কন্যা তাহলে ওপরের দিকে ভুঁড়িটা বেশি হয়।তাহলে আর কিসের অপেক্ষা?আপনি নিশ্চয়ই এখন নিজের পেটের দিকে নজর দেবেন এখন।

কালো দাগ

লিনিয়া নিগ্রা বা কালো দাগ,যেটা আপনার তলপেটের নিচের দিক থেকে নাভি অবধি যায় সেটা দেখা যায় যদি আপনার কন্যা সন্তান পেটে হয়।

যদি সেই দাগটি গর্ভাবস্থার শেষের দিকে মিলিয়ে যায়,আশা করতে পারেন যে ছেলে সন্তান হতে চলেছে।অন্য মতে – দাগটি যদি তলপেটের নিচের দিক থেকে শুরু করে পাঁজর অবধি আসে, তাহলে আপনার গর্ভে ছেলে সন্তান আশা করতে পারেন।

গর্ভে ছেলে সন্তান

পেটের জন্য পেণ্ডুলাম কৌশল

জানতে চান তো,পেটে আপনার ছেলে কি না? তাহলে আপনার বিয়ের আংটিটা নিয়ে আসুন। এতে আপনার একটা চুল জড়ান। শুয়ে পড়ে আংটিটা পেটের ওপর দোলান।যদি সেটা গোল গোল হয়ে ঘুরতে থাকে, এটা লক্ষণ আপনার ছেলে হতে চলেছে।যটি সেটা পেণ্ডুলামের মত দোলে, তাহলে বুঝবেন যে পেটে কন্যা সন্তান।

পেটের ভেতরের নড়াচড়া

এটা অনেকেই মানেন যদি আপনার পেটে ছেলে সন্তান থাকে তাহলে নড়াচড়া কম করে।কিন্তু মেয়ে হলে, সে পেটের মধ্যে অনেক বেশি ঘোরে, যার ফলে আপনার পেটটা কখন বেশ সুন্দর কখনও বা অদ্ভূত দেখতে লাগে।

পেটটা দেখতে কেমন লাগছে

আপনার পেটটি দেখতে কেমন লাগছে – বাস্কেটবলের মত না তরমুজ?যদি সেটা বাস্কেটবলের মত দেখায়, সেটা লক্ষণ ছেলে সন্তানের। কিন্তু যদি সেটা দেখায় তরমুজের মত, তাহলে সেটা কন্যা।

বাচ্চার ওজন

আপনার গর্ভের সন্তানের ওজনটা যদি সামনের দিকে অনুভব করেন, তাহলে সেটা ছেলে হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। যদি সেটা সারা পেটময় মাঝখানের মনে হয়, তাহলে কন্যা সন্তান হতে পারে।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট