জাতীয় ঈদগাহে আইয়ুব বাচ্চুর প্রথম জানাজা সম্পন্ন

জাতীয় ঈদগাহে আইয়ুব বাচ্চুর প্রথম জানাজা সম্পন্ন

কিংবদন্তি সঙ্গীতশিল্পী ও গিটার জাদুকর প্রয়াত আইয়ুব বাচ্চুর জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে জাতীয় ঈদগাহে। জুমার নামাজ শেষে তার প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা পড়ান সুপ্রিম কোর্ট জামে মসজিদের খতিব আবু সালেহ মুহাম্মদ কলিমউল্লাহ।

জাতীয় ঈদগাহে মাঠে কিংবদন্তি শিল্পীর জানাজায় প্রায় ৫০ হাজার মানুষ অংশ নেন। প্রচুর জনসমাগমের কারণে জানাজা নির্ধারিত সময়ের কিছু পরে শুরু হয়।

এর আগে শুক্রবার (১৯ অক্টোবর) সকাল সোয়া ১০টায় তার মরদেহ শহীদ মিনারে নেওয়া হয়। সেখানে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। শহীদ মিনারে সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর ১২টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত মরদেহ রাখা হয়। এর পর জানাজার জন্য জাতীয় ঈদগাহে নেওয়া হয়।

সকাল পৌনে ১০টার দিকে গিটার জাদুকর আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহবাহী অ্যাম্বুলেন্সটি স্কয়ার হাসপাতাল থেকে রওনা দিয়ে সকাল সাড়ে ১০টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পৌঁছে।

শেষবারের মতো কিংবদন্তিকে দেখতে ভক্ত ও বিশিষ্টজনদের ঢল নামে শহীদ মিনারে। সেখানে নেওয়া হয় বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থাও।

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট শেষ শ্রদ্ধা জানানোর এ অনুষ্ঠান আয়োজন করে।

কিংবদন্তি সঙ্গীতশিল্পীর পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, প্রথম জানাজা শেষে মগবাজারে কাজি অফিস গলিতে আইয়ুব বাচ্চুর গান তৈরির কারখানা ‘স্টুডিও এবি কিচেন’-এ শেষবারের মতো তার মরদেহ নিয়ে যাওয়া হবে। সেখানে আনুষ্ঠানিকতা শেষে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল আই প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হবে দ্বিতীয় জানাজা।

দ্বিতীয় জানাজা শেষে এই সঙ্গীতশিল্পীর মরদেহ আবারও স্কয়ার হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হবে। সেখান থেকে চট্টগ্রামে নেওয়া হবে আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ। চট্টগ্রামের নিজ শহরের পারিবারিক কবরস্থানে মায়ের কবরের পাশে শনিবার (২০ অক্টোবর) আইয়ুব বাচ্চুকে দাফন করা হবে।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার (১৮ অক্টোবর) সকালে অসুস্থ হয়ে পড়লে নিজ বাসভবন থেকে স্কয়ার হাসপাতালে নেওয়ার পর সকাল ৯টা ৫৫ মিনিটে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট