জার্মানিতে রূপকথার কুমড়োরাজ্য!

জার্মানিতে রূপকথার কুমড়োরাজ্য!

জার্মানির এক রূপকথার রাজ্য কাইজারস্লটার্ন । পাহাড়ের কোলঘেঁষা সবুজ ছোট্ট শহর, যাকে বলা হয় রূপকথার কুমড়োরাজ্য। হেমন্তের নতুন ফসল ঘরে তোলার খুশিতে আমরা যেমন নবান্ন উৎসবে মেতে উঠি, ঠিক তেমনি জার্মানিতে সবাই মেতে ওঠে কুমড়ো উৎসবে। জার্মান ভাষায় এর নাম কুরবিস ফেস্টিভ্যাল।

বিভিন্ন আকৃতির ১৫০ জাতের ৫০ হাজারেরও বেশি কুমড়ো দিয়ে সাজিয়ে তোলা হয় এই রূপকথার রাজ্য। লম্বা লাঠি হাতে মেটে রঙা কুমড়োর পোশাকে আশেপাশে সারাক্ষন ঘুরে বেড়ায় প্রহরীসহ এ রাজ্যের কর্মকর্তা কর্মচারীরা। কুমড়োরাজ্যের এই কুমড়ো মেলাতে প্রতিনিয়তই ঘুরতে আসে আশপাশের নানা শহর থেকে আসা নানা বয়সী দর্শনার্থীরা।

কুমড়োরাজ্যের প্রবেশপথেই রয়েছে নান্দনিক সাজে সজ্জিত নানা আকারের কুমড়ো। পুতুল আর ফুলে পানির ফোয়ারার পাশে বিভিন্ন জাতের কুমড়োর চাষাবাদ, উৎপত্তি, প্রতীকী খামারের দৃশ্যও মনোরম। পথের ধারে বিশাল বিশাল আকৃতির গোটা চারেক কুমড়ো রাখা। এদের কোনো কোনোটির ওজন ৫০০ কেজির কাছাকাছি।

কুমড়োরাজ্যে প্রতিবছরই দর্শনার্থীদের জন্য থাকে নানা ধরনের আকর্ষণীয় পরিবেশনা। তার মধ্যে সার্কাস অন্যতম। এবারের আয়োজনে কুমড়োর বাহারে যুক্ত হয়েছে নানা খেলা ও জাদুর ঝলক। পুরো কুমড়োরাজ্যে তাই সাজ সাজ রব। ১১টির বেশি সার্কাসের দৃশ্যের পাশাপাশি বিশাল টুপির ভেতর থেকে জাদুর ছোঁয়ায় মাথা বের করে মিটিমিটি হাসা সাদা একটি খরগোশও অন্যতম।

এছাড়াও এ কুমড়োরাজ্যে বানররাজ মাথায় হাত দিয়ে বসে থাকে শখের বায়োস্কোপ নিয়ে। কমলা জামার ওপর হালকা হলুদ রঙের কুমড়োর কোট পরে এক সঙ মানববের শিশুদের নিয়ে খেলাও অন্যতম।

সবমিলিয়ে অপরূপ এ কুমড়োরাজ্য যেন সত্যিই এক রূপকথার রাজ্য।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট