টানা সাত ম্যাচ হারার পর জিতল অস্ট্রেলিয়া

টানা সাত ম্যাচ হারার পর জিতল অস্ট্রেলিয়া

অবশেষে ওয়ানডেতে জয়ের মুখ দেখলো অস্ট্রেলিয়া। ৭ ম্যাচ পর প্রথমবার জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে তারা। শুক্রবার অ্যাডিলেডে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৭ রানে হারিয়ে তিন ম্যাচের সিরিজে স্বাগতিকরা ফিরিয়েছে ১-১ সমতা।

২৩১ রান করার পরও বোলারদের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে ২০১৮ সালে মাত্র দ্বিতীয় জয়ের দেখা পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া। জানুয়ারিতে এই অ্যাডিলেডেই শেষবার ৫০ ওভারের ম্যাচে জয়ের হাসি নিয়ে মাঠ ছেড়েছিল স্বাগতিকরা। মাঝে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে চলতি সিরিজের প্রথম ম্যাচেও সঙ্গী হয়েছিল হারের হতাশা। শুক্রবার হারের বৃত্ত ভেঙে নতুন শুরুর ইঙ্গিত দিয়েছে অ্যারন ফিঞ্চরা।

 শুক্রবার অস্ট্রেলিয়া প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ৪৮.৩ ওভারে ২৩১ রানে অলআউট হয়ে যায়। জবাবে ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ২২৪ রানে থামে দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংস। ৭ রানে জয় পায় স্বাগতিকরা। এমন জয় সম্ভব হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার পেসারদের বদৌলতে।

দক্ষিণ আফ্রিকার যে ৯টি উইকেটের পতন ঘটেছে তার ৮টিই নিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার পেসাররা। মার্ক স্টয়েনিস ৩টি উইকেট নেন। ২টি করে উইকেট নেন মিচেল স্টার্ক ও জস হাজলেউড। ১টি উইকেট নিয়েছেন প্যাট কামিন্স।

ব্যাট হাতে দক্ষিণ আফ্রিকার ডেভিড মিলার সর্বোচ্চ ৫১ রান করেন। ৭১ বল খেলে ৩ চার ও ১ ছক্কায় এই রান করেন তিনি।  ৪৭ রান করেন ফাপ ডু প্লেসিস। মূলত এই জুটিতেই জয়ের স্বপ্ন দেখছিল প্রোটিয়ারা।  তাদের বিদায়ের পর শেষ দিকে লুঙ্গি এনগিদি ও ইমারন তাহির চেষ্টা করেও ৭ রানে হেরে যান। এনগিদি ১৯ ও তাহির ১১ রানে অপরাজিত থাকেন।

তার আগে অস্ট্রেলিয়ার ইনিংসে ব্যাট হাতে কেউ অর্ধশত রান করতে পারেনি। তবে চল্লিশোর্ধ ইনিংস খেলেছেন তিনজন ব্যাটসম্যান। আলেক্স ক্যারি সর্বোচ্চ ৪৭ রান করেন। ৪৪ বলে ৩ চার ও ২ ছক্কায় ৪৪ রান করেন ক্রিস লিন। আর উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান অ্যারোন ফিঞ্চ করেন ৪১ রান। এ ছাড়া শেষ দিকে অ্যাডাম জাম্বা ২২ রান করেন। তার আগে শন মার্শ খেলেন ২২ রানের ইনিংস। তাতে ২৩১ রানের সংগ্রহ পায় অস্ট্রেলিয়া।

বল হাতে দক্ষিণ আফ্রিকার কাগিসু রাবাদা ৪টি উইকেট নেন। ৩টি উইকেট নেন দোয়াইনি প্রিটোরিয়াস। ২টি উইকেট নেন ডেল স্টেইন। অপর উইকেটটি শিকার করেন লুঙ্গি এনগিদি।

ম্যাচসেরা হন অ্যারোন ফিঞ্চ।

১১ নভেম্বর শেষ ওয়ানডেতে মুখোমুখি হবে অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকা।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট