টেস্টে কিপার-ব্যাটসম্যান মুশফিকই বেশি ধারাবাহিক ?

টেস্টে কিপার-ব্যাটসম্যান মুশফিকই বেশি ধারাবাহিক ?

দক্ষিণ আফ্রিকায় পচেফস্ট্রম টেস্ট থেকে সর্বশেষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে কিংসটন টেস্ট। এই ছয় টেস্টে কেবল ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলেছিলেন মুশফিকুর রহিম। কিপিংয়ের ভার কমিয়ে ব্যাটসম্যান মুশফিককে নির্ভার রাখতে চেয়েছিল বাংলাদেশ দল। তবে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিলেট টেস্ট দিয়ে আবার উইকেটকিপিং গ্লাভস ফিরে পাচ্ছেন তিনি।

মুশফিকের কিপিংয়ে ফেরার ইঙ্গিত ছিল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দল ঘোষণার পরই। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে বিশেষজ্ঞ কিপার হিসেবে খেলা নুরুল হাসান সোহানকে এবার স্কোয়াডেই রাখা হয়নি। তবু উইকেটকিপিং করতে পারেন এমন আরও দুজন আছেন স্কোয়াডে। ওপেনিংয়ে খেলায় লিটন দাস আর কেবল ব্যাটসম্যান হিসেবে বিবেচিত হওয়ায় মোহাম্মদ মিঠুনকে দিয়ে কিপিং করানোর কথা ভাবছে না দল।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর থেকেই লিটন ওপেনিংয়ে খেলছেন। তামিম ইকবাল না থাকায় এবারও ইমরুল কায়েসকে নিয়ে তিনিই নামবেন শুরুতে। লিটনের উইকেটের পেছনে দাঁড়ানোর বাস্তবতা তাই ছিলও না।

দলে থাকা মোহাম্মদ মিঠুন সে জায়গায় মেটাতে পারতেন চাহিদা। ঘরোয়া ক্রিকেটে নিয়মিত উইকেটকিপার তিনি। তবে নির্বাচক হাবিবুল বাশার জানিয়েছেন কেবল ব্যাটসম্যান হিসেবেই দলে রাখা হয়েছে মিঠুনকে। তাছাড়া একজন বাড়তি বোলার খেলালে মিঠুনের একাদশে জায়গা পাওয়াও কঠিন।

সাকিব আল হাসান না থাকায় একজন বাড়তি বোলার বা ব্যাটসম্যান এমনিতেই খেলাতে হবে। আরও একজন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান রাখার জায়গা তাই নেই। এই পরিস্থিতিতে তাই কিপিং গ্লাভস নিয়ে মুশফিকেই ফিরে যাচ্ছে দল।

মঙ্গলবার সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে লম্বা সময় নিয়ে উইকেটকিপিং অনুশীলন করেন মুশফিক। হাবিবুলই নিশ্চিত করেন, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে উইকেটের পেছনে থাকছেন মুশফিক।

মুশফিকুর রহিমের কিপিং নিয়ে বহু আলোচনা, বহু সমালোচনা। টেস্টে দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান তিনি, কিপিংটা তার কি না করলেই নয়? বিশেষ করে টেস্টে উপরের দিকে ব্যাট করলে লম্বা সময় কিপিং তো একটা বাধা। মুশফিক নিজে অবশ্য বরাবরই পরতে চেয়েছেন কিপিং গ্লাভস। পরিস্থিতির দাবিতে ছয় টেস্ট পরই প্রিয় গ্লাভস ফিরে পাচ্ছেন তিনি।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট