ঢাকায় ‘অ্যান্ট ম্যান অ্যান্ড দ্য ওয়াস্প’

ঢাকায় ‘অ্যান্ট ম্যান অ্যান্ড দ্য ওয়াস্প’

অদ্ভুত ক্ষমতাসম্পন্ন সেই পিঁপড়ামানবের কথা ভুলে যাননি নিশ্চয়ই দর্শকরা। অবিশ্বাস্য সব কর্মকাণ্ডে কি দারুণ চমকই না দিয়েছিল সে। হলিউডের সিনেমাপ্রেমীদের বোঝার বাকি নেই যে, বলা হচ্ছে মার্ভেলের ‘অ্যান্ট ম্যান’-এর কথা। ২০১৫ সালে পর্দায় আসা পল রুড অভিনীত মার্ভেলের এই সুপারহিরো মুক্তির পরপরই উঠে গিয়েছিল বক্স-অফিসের শীর্ষস্থানে।

শেষ পর্যন্ত ছবিটির আয় দাঁড়িয়েছে ৫১৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এমন সাফল্য পাওয়া ছবির সিক্যুয়ালের জন্য দর্শকরা অপেক্ষা করবেন এটাই স্বাভাবিক। দর্শকদের হতাশ করেনি মার্ভেল স্টুডিও।

প্রায় তিন বছরের সেই অপেক্ষার অবসান ঘটতে চলেছে। এবার ‘অ্যান্ট ম্যান’-এর সঙ্গে যোগ হয়েছে আরেক সুপারহিরো ‘দ্য ওয়াস্প’। ছবির নাম ‘অ্যান্ট ম্যান অ্যান্ড দ্য ওয়াস্প’। ৬ জুলাই আন্তর্জাতিকভাবে মুক্তি পেয়েছে ছবিটি। শুক্রবার (১৩ জুলাই) এটি মুক্তি পাবে রাজধানীর স্টার সিনেপ্লেক্সে।

পেটন রিডের পরিচালনায় এ ছবিতেও অ্যান্ট ম্যানের ভূমিকায় থাকছেন পল রুড। নতুন মিশনে এবার ওয়াস্প এর সাথে এক দল হয়ে কাজ করবে ‘অ্যান্ট ম্যান’। অ্যান্ট ম্যান-এর মূল বৈশিষ্ট্য যে কোন সময় নিজেকে ছোট ও বড় করতে পারা। উড়তে পারার ক্ষমতাবিশিষ্ট ‘দ্য ওয়াস্প’কেই মুখ্যভাবে দেখা গেছে প্রকাশিত প্রথম ট্রেলারে। ডক্টর হ্যাঙ্কের মেয়ে হোপ ভ্যান ডাইন চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইভাঞ্জেলিন লিলি।

‘ক্যাপ্টেইন আমেরিকা: সিভিল ওয়ার’ এর পর স্কট ল্যাং এর গল্প নিয়েই আলাদাভাবে নির্মিত হয় ‘অ্যান্ট ম্যান’। এই চরিত্র একই সঙ্গে সুপারহিরো, আবার একজন বাবাও। নিজের দায়িত্ববোধ আর অপরাধ দমনের ইচ্ছাকে সমন্বয় করে কাজ করে ‘অ্যান্ট ম্যান’। এবার ‘দ্য ওয়াস্প’ নিঃসন্দেহে চমৎকার সংযোজন বলে দাবি করছেন সমালোচকেরা। ধারণা করা হচ্ছে অ্যান্ট ম্যান সিরিজকে আরো এক ধাপ এগিয়ে নিয়ে যাবে এ ছবি।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট