তনু হত্যার তদন্ত নিয়ে জনমনে সন্দেহ : ড. মিজান

তনু হত্যার তদন্ত নিয়ে জনমনে সন্দেহ : ড. মিজান

জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মিজানুর রহমান জানিয়েছেন, তনু হত্যার তদন্ত নিয়ে জনমনে সন্দেহ দেখা দিয়েছে । রাজধানীর একটি হোটেলে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন আয়োজিত ‘বাংলাদেশে মানবাধিকার ও ফৌজদারি ন্যায়বিচার প্রশাসন’ শীর্ষক একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের কাছে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মিজানুর রহমান জানান, তনু হত্যার তদন্ত প্রক্রিয়া ভিন্ন খাতে প্রবাহিত হবে কি না, সেটা নিয়েও সন্দেহ তৈরি হয়েছে। শুধু তনু নয়, যেকোনো হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী প্রতিমুহূর্তে বলে যাচ্ছে, ‘আমরা অতি কাছে চলে এসেছি। প্রমাণ হাতে পেয়েছি।’ এ ধরনের আশ্বাসবাণী বারবার দেওয়া হয়। কিন্তু এসব কথার বাস্তবায়ন হচ্ছে খুব কম। কথা ও কাজের সঙ্গে মিল হচ্ছে না অনেক ক্ষেত্রেই।

অনুষ্ঠানে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান জানান, কেউ যদি থানায় সাধারণ ডায়েরি করতে যান, সেটি নেওয়া হয় না। সাধারণ মানুষ তাহলে যাবে কোথায়।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ভারতের আইন কমিশনের সাবেক সদস্য পদ্মশ্রী এন আর মাধব মেনন জানান, পুলিশের গ্রেপ্তারের ক্ষমতা যদি কমানো যায়, তবে মানবাধিকার লক্সঘনের ঘটনা অর্ধেকে নেমে আসবে। দেখা গেছে, ভারতে পুলিশের গ্রেপ্তারি ক্ষমতা কমালে ৬২ শতাংশ গ্রেপ্তার এড়ানো যেত।

কাঠমান্ডু স্কুল অব ল’র অধ্যাপক যুবরাজ স্যাংরোলা জানান, পুলিশের সঙ্গে সরকারি প্রসিকিউশনের যদি সমন্বয় না থাকে, তবে সুষ্ঠু বিচার হওয়া খুবই কঠিন।

সম্পর্কিত সংবাদ
নিজস্ব প্রতিবেদক