তামিমকে ওভাবে নামতে দেখে বিস্মিত সাবেক কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে

তামিমকে ওভাবে নামতে দেখে বিস্মিত সাবেক কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে

তামিম ইকবাল ম্যাচের দ্বিতীয় ওভারেই চোট পেয়ে বেরিয়ে যান। কেবল মাঠ থেকে না, তাকে যেতে হয় হাসপাতালেও। বাম হাতের কব্জিতে ধরা পড়ে চিড়। এই অবস্থায় এই ম্যাচে তার নামার বাস্তব সম্ভাবনা কেউ দেখেননি। টিম ম্যানেজমেন্টের পক্ষ থেকেও জানানো হয় নামছেন না তামিম। তবু সবাইকে বিস্মিত করে তিনি নেমেছেন, তৈরি হয়েছে নতুন বীরত্ব গাথা। জানা গেছে, এমন পরিস্থিতিতে তার মাঠে নামার পেছনের গল্প।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে তামিমের নামার সিদ্ধান্ত নিয়ে অধিনায়ক মাশরাফি মর্তুজা খুব বেশি কিছু বলতে চাইলেন না। কেবল বললেন তামিমকে মনে রাখার কথা, আর বাকিটা শুনে নিতে হবে তামিমের কাছ থেকেই। কিন্তু জানা গেছে বিশেষ পরিস্থিতিতে তামিমকে ব্যাট করতে পাঠানোর সিদ্ধান্তটা আসলে নিয়েছিলেন অধিনায়ক নিজেই। অষ্টম উইকেট পড়ে যাওয়ার পর সিদ্ধান্ত হয় আরেক উইকেট পড়লে, যদি মুশফিক স্ট্রাইকে থাকেন তবেই ব্যাট হাতে মাঠে নামবেন তামিম।

৪৭তম ওভারে মোস্তাফিজুর রহমান রান আউটে কাটা পড়ার সময় নন-স্ট্রাইকে ছিলেন মুশফিক। ওভার শেষ হতে বাকি ছিল আরও এক বল।  অধিনায়কের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তখন আর মাঠে নামার কথা নয় তামিমের। অর্থাৎ ২২৯ রানেই থেমে যাওয়ার কথা বাংলাদেশের। এরপরই সাহসী সিদ্ধান্ত তামিমের। তামিম তখন নিজ থেকেই বলেন, ‘আমি গিয়ে এক বল খেলব, আমি যাব।’

দলের সূত্রের খবর তামিমের হাতের একাধিক জায়গায় ফ্র্যাকচার দেখা দিয়েছে। হাড় আলগাও হয়ে গেছে। দুই আঙুলে ব্যান্ডেজ থাকায় তাই হাতে গ্লাভস পরাও সম্ভব হচ্ছিল না। তামিমের সিদ্ধান্তের পর অধিনায়ক নিজে গ্লাভস কেটে  হাতে সেট করে দেন।  বাকিটা ইতিহাস। নেমে এক হাতে লাকমালের শেষ বলটা কোনমতে ঠেকান তামিম। তার এক হাতে ব্যাট করার যে ছবি এখন ঘুরছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।  পরে আর স্ট্রাইকে যেতে হয়নি। মিলিয়ন ডলার দামি ৩২ রান একাই তুলেছেন মুশফিক।

বাংলাদেশের সংখ্যার হিসাবে পায় ২৬১ রানের পূঁজি। কিন্তু ওই মোড় ঘুরানো সিদ্ধান্তে পেয়ে যায় ম্যাচের সবচেয়ে দামি মোমেন্টাম। তামিমকে নামতে দেখে হতভম্ব লঙ্কান অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসও স্বীকার করে নিলেন তা।

আনুষ্ঠানিকভাবে এখনো তামিমের ছিটকে পড়ার খবর দেয়নি বাংলাদেশ দল। আরও দুই-তিনদিন দেখে তবেই নেওয়া হবে সিদ্ধান্ত। তবে জানা গেছে, এশিয়া কাপ তো বটেই তামিমের মাঠে ফিরতে অপেক্ষা করতে হবে লম্বা সময়। মোটে ৪ বল খেলে মাত্র ২ রান করে অপরাজিত থাকা তামিম হয়ে উঠেছেন নায়ক। সেই নায়ককে ছাড়াই তাই এশিয়া কাপে বাকি ম্যাচগুলো খেলার পরিকল্পনা আঁটতে হবে বাংলাদেশকে।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট