তাহলে মাশরাফি কি টি-টোয়েন্টিতে ফিরছেন?

তাহলে মাশরাফি কি টি-টোয়েন্টিতে ফিরছেন?

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে কিভাবে কী হয়ে গেল তা নিয়ে বেশ উদ্বিগ্ন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। দেশের মাটিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে একের পর এক হারে বেশ কষ্ট পেয়েছে টাইগার ভক্তরা। তিনটি সিরিজই লঙ্কানরা ছিনিয়ে নিতে পেরেছে টাইগারদের পরিকল্পনাহীন খেলার কারণে।

সব ফরম্যাটেই বর্তমানে দলের অবস্থা খারাপ। তবে টি-টোয়েন্টিতে অবস্থা তুলনামূলক বেশি খারাপ। আর সে কারণেই আন্তর্জাতিক টি ২০ ক্রিকেটে ফেরার জন্য আবারও বলেছে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান। বিসিবি প্রধানের এ বক্তব্যের পর থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে এ নিয়ে আলোচনার ঝড় উঠেছে। তবে এখনই এ ব্যাপারে মুখ খুলতে রাজি নন মাশরাফি।

মাশরাফির এক ঘনিষ্ঠ সূত্র জানিয়েছে, কোনো ধরনের অনুরোধেই মাশরাফি আর আন্তর্জাতিক টি ২০ ক্রিকেটে ফিরবেন না। তবে তার এক ঘনিষ্ঠ বন্ধু মনে করেন, বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান মাশরাফিকে জোরালোভাবে অনুরোধ করলে হয়তো তিনি ফিরতেও পারেন।

টি ২০ ক্রিকেটে আবারও দেশের জার্সি গায়ে তোলা নিয়ে কি সিদ্ধান্ত নেবেন জানতে চাইলে মাশরাফি বলেন, ‘আমি শুনেছি (নাজমুল হাসানের বক্তব্য)।  কিন্তু এ নিয়ে এখনই কিছু বলতে চাই না।’

২০১৭ সালে শ্রীলংকার মাটিতে বোর্ডেরই চাপে টি ২০ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিতে বাধ্য হয়েছিলেন মাশরাফি। সেই শ্রীলংকায় ত্রিদেশীয় টি ২০ টুর্নামেন্টে তাকে ফেরানোর জন্য জোর চেষ্টা করা হচ্ছে। বোর্ড জোর দিলে দেশের স্বার্থে হয়তো তিনি আবার ফিরতেও পারেন আন্তর্জাতিক টি ২০তে।  আগামী ৬ মার্চ শ্রীলঙ্কায় শুরু হবে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজ। আজ বৃহস্পতিবার তার প্রস্তুতি ক্যাম্প শুরু। এই দলে ৫২টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ৪২ উইকেট নেওয়া মাশরাফি কি থাকবেন? যদি ফেরেন তাহলে মাশরাফি কি শুধু খেলোয়াড় হিসেবে দলে থাকবেন? নাকি তাকে দলনায়ক করা হবে?

তবে টি ২০ ও টেস্ট ক্রিকেটের জন্য অধিনায়ক করা হয়েছে সাকিব আল হাসানকে। এদিকে বোর্ডের একটি অংশ মাশরাফিকে আবারও অধিনায়ক হিসেবে দেখতে চায়।  শ্রীলংকার বিপক্ষে সদ্যসমাপ্ত টি ২০ সিরিজের আগে মাশরাফিকে ফেরার জন্য বলা হয়েছিল বলে জানিয়েছেন বিসিবি সভাপতি। কিন্তু বাস্তবে তাকে ফেরাতে দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের আগে থেকেই চেষ্টা করা হচ্ছে। বোর্ডের একাধিক পরিচালকের বিশ্বাস, মাশরাফি ফিরবেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পরিচালক বলেন, ‘মাশরাফি এখনও আমাদের সেরা পেসার। সভাপতির প্রস্তাবে সায় দিয়ে সে ফিরলে ভালো হবে। মাশরাফির সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। আশা করছি সে ফিরবে।’

এদিকে মাশরাফির ঘনিষ্ঠজনরা তাকে না ফেরার পরামর্শ দিয়েছেন। তাদের ভয়, ফিরলে মাশরাফির ভাবমূর্তি যদি নষ্ট হয়ে যায়। বাংলাদেশ দলের সুসময় ফিরিয়ে আনতে মাশরাফিকে আবারও আন্তর্জাতিক টি ২০ ক্রিকেটে ফিরতে বলা হচ্ছে। বাংলাদেশ যদি খারাপ করে, তাহলে হয়তো আবারও সমালোচনা শুরু হবে। সমালোচনা হবে মাশরাফিকে নিয়েও।

কিন্তু দেশকে বড্ড ভালোবাসেন মাশরাফি। সে দেশের জন্য জীবন বাজি রেখে বল হাতে লড়াই করে। যেখানে মাত্র একটি বা দুটি অস্ত্রোপাচার করার পরে অন্যান্য পেসাররা রণে ভঙ্গ দেন। সেখানে সাতটি মেজর অপারেশন করার পরও দেশের জন্য খেলে যাচ্ছেন এই লড়াকু খেলোয়াড়। তাই সে কি দেশের জন্যে অভিমান ভেঙে অবসর থেকে ফিরবেন না? এমন প্রশ্নই এখন মাশরাফি পাগল ভক্তদের মনে।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট