দুর্নীতি নয়, মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি : প্রধানমন্ত্রী

দুর্নীতি নয়, মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি : প্রধানমন্ত্রী

 

রাজধানীর ওপর চাপ কমাতে গ্রামেও শহরের সুযোগ সুবিধা পৌঁছে দিতে বর্তমান সরকার কাজ করছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শনিবার ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশের (আইডিইবি) ২২তম জাতীয় সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দুর্নীতি নয়, মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। মানুষ যেন গ্রামে বসে সব চাহিদা পূরণ করতে পারে সে লক্ষ্যেই গ্রামকে শহর হিসেবে গড়ে তুলতে কাজ করছে সরকার।

তিনি বলেন, মানুষের সেবা দেওয়ার জন্য এবং সেবা পাওয়ার যা যা অধিকার, আমরা তা করে দিচ্ছি। মানুষ গ্রামে বসেই তার সব চাহিদা পূরণ পারবে— সেটাই আমরা চাই।

দেশকে উন্নত সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে চাই উল্লেখ করে অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আজকে আমরা উন্নয়ন করে যাচ্ছি। উন্নয়নের সঙ্গে সঙ্গে মানুষের জীবনমানও উন্নত হচ্ছে। কিন্তু আমরা কোথায় ছিলাম, কী অবস্থায় ছিলাম, সেটা অনেকে জানেও না।’

পদ্মা সেতুতে অর্থায়ন জটিলতায় নোবেল বিজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূসের সংশ্লিষ্টতার সমালোচনা করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘একজন নোবেল লরিয়েট, উনি একটা ব্যাংকের এমডির পদ হারালেন, তাও সরকারের বিরুদ্ধে মামলা করে। আর সে কারণে তিনি আমেরিকার তৎকালীন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটনকে অনুরোধ করলেন এবং ওয়ার্ল্ড ব্যাংককে নির্দেশ দেওয়া হলো পদ্মা সেতু প্রকল্পে টাকা বন্ধ করতে।’

‘এখানে আমি দুর্নীতি করতে বসিনি। আমি মানুষের ভাগ্য পবিরর্তন করতে বসেছি। আজকে আমরা নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু করছি। আমাদের উন্নয়ন বাজেটের ৯০ ভাগ আমাদের নিজস্ব অর্থায়নে করে যাচ্ছি এবং বাজেট প্রণয়নেও আমরা নিজস্ব অর্থায়নেই করে যাচ্ছি। এখানে কারও কাছে হাত পেতে ভিক্ষা চেয়ে করতে হচ্ছে না। এটাই হচ্ছে সব চেয়ে বড় কথা,’— বলেন শেখ হাসিনা।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইডিইবি’র কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সাধারণ সম্পাদক শামসুর রহমান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আইডিইবি’র কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সভাপতি এ কে এম হামিদ।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট