দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

জি-৭ শীর্ষ সম্মেলনের আউটরিচ অধিবেশনে যোগদানসহ কানাডায় চারদিনের সরকারি সফর শেষ করে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার রাত ১১টা ২০ মিনিটে এমিরেটাস এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী। এর আগে প্রধানমন্ত্রী ও তার সফর সঙ্গীদের নিয়ে গত বৃহষ্পতিবার ঢাকা থেকে কানাডার উদ্দেশ্যে রওযানা হন।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর আমন্ত্রণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জি-৭ শীর্ষ সম্মেলনের আউটরিচ অধিবেশনে যোগ দেন। শুক্রবার শেখ হাসিনা জি-৭ শীর্ষ সম্মেলন ও আউটরিচ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারী রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের সম্মানে কানাডার গভর্নর জেনারেলের দেয়া এক নৈশভোজে অংশ নেন।

এরপর শনিবার কুইবেকের হোটেল লা মানোয়া রিচেলে অনুষ্ঠিত জি-৭ শীর্ষ সম্মেলনের আউটরিচ অধিবেশনে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী। মুলতঃ বিশ্বের অর্থনৈতিক পরাশক্তি ৭টি দেশ কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, জাপান, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রের একটি জোট জি-৭। প্রধানমন্ত্রী জি-৭ সম্মেলনে অংশগ্রহণ ছাড়াও আমন্ত্রিত আরও ১৬টি দেশের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক ও রোহিঙ্গা ইস্যুতে মতবিনিময় করেন।

সফরকালে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর সঙ্গে অনুষ্ঠিত বৈঠকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি নূর চৌধুরীকে ফেরত চান শেখ হাসিনা। এছাড়া রোহিঙ্গা ইস্যুতেও মিয়ানমারের ওপর চাপ অব্যাহত রাখার আহবান জানান। শেখ হাসিনা রোববার কুইবেক থেকে টরেন্টো ফিরে আসেন এবং ওইদিন বিকেলে কানাডা আওয়ামী লীগের এক সংবর্ধনা সভায় বক্তব্য রাখেন।

টরেন্টোতে কানাডার মিয়ানমার বিষয়ক বিশেষ দূত বব রে-এর সঙ্গে রোহিঙ্গা ইস্যুতে বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী। পরে তিনি কানাডার সাসকাটচেওয়ান প্রদেশের উপ-প্রধানমন্ত্রী ও বাণিজ্য ও রফতানি উন্নয়ন মন্ত্রী গর্ডন ওয়েন্ট কিউ.সি, ইমিগ্রেশন অ্যান্ড ক্যারিয়ার ট্রেনিং বিষয়ক মন্ত্রী জেরিমি হ্যারিসন এবং সেদেশের ব্যবসায়ী নেতাদের সঙ্গেও বৈঠক করেন। টরেন্টো ত্যাগের আগে প্রধানমন্ত্রী তার হোটেলে কমার্শিয়াল কর্পোরেশন অব কানাডার (সিসিসি) প্রেসিডেন্ট ও সিইও মার্টিন জেবলোকির সঙ্গে বৈঠক করেন।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট