ধর্ষণের অভিযোগ: ক্লাবকে পাশে পেলেন রোনালদো

ধর্ষণের অভিযোগ: ক্লাবকে পাশে পেলেন রোনালদো

পর্তুগিজ তারকা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর বিপক্ষে ২০০৯ সালে ধর্ষণের শিকার হওয়ার অভিযোগ তুলেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের এক নারী। যার নাম তখন প্রকাশ না পেলেও পরে জানানো হয়েছিল সেই নারীর নাম মায়োরগা। জার্মান সংবাদমাধ্যম ডার স্পেইগেল ২০১৭ সালে সেটি জনসম্মুখে আনে। এক বছর পর আবারো সমালোচিত সেই ঘটনা নিয়ে তোলপাড় বিশ্ব ফুটবলে। নতুন করে সেই ধর্ষণের মামলার তদন্ত শুরু করেছে লাস ভেগাস পুলিশ।

২০০৯ সালে রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দেওয়ার মুহূর্তে যুক্তরাষ্ট্রে ছুটি কাটাচ্ছিলেন রোনালদো। লাস ভেগাসে ২০০৯ সালে ১২ জুন এক নৈশ ক্লাবে দেখা হওয়ার পর পরদিন পামস ক্যাসিনো রিসোর্টে এক পার্টিতে মায়োরগাকে ডেকে আনেন রোনালদো। সেখানেই মায়োরগাকে যৌন হয়রানি ও একপর্যায়ে ধর্ষণ করেন মদ্যপ পর্তুগিজ তারকা। ডার স্পেইগেল সেটি বেশ ফলাও করে ছেপেছিল। তবে, রোনালদোর আইনজীবী প্রতিবেদনটি ‘মিথ্যা’ বলে দাবি করে সংবাদমাধ্যমের বিরুদ্ধে উল্টো মামলার কথা জানিয়েছিলেন।

সম্প্রতি রোনালদোও জানিয়েছেন, আমার নাম ব্যবহার করে কিছু লোক নিজেদের পরিচিতি বাড়িয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে। তবে, আমি একজন সুখী মানুষ এবং আমার পরিবার সহ সব ঠিক আছে। আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ আমি সম্পূর্ণভাবে অস্বীকার করছি। কারণ ধর্ষণ জঘন্য একটি অপরাধ। সেটি আমার অবস্থানের সঙ্গে মানায় না। আমার দিক থেকে আমি পরিষ্কার। তাই বানোয়াট এই অভিযোগে আমি ভয় পাচ্ছি না। এমনকি তদন্ত নিয়েও না।

চলতি মৌসুমেই রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে রোনালদো যোগ দিয়েছেন ইতালির ক্লাব জুভেন্টাসে। তার নতুন ক্লাব এতোদিন মুখ বুজে থাকলেও এবার সরব হয়েছে। রোনালদোর পরিষ্কার বার্তার পর জুভেন্টাস এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, রোনালদো গত কয়েক মাসে যে পেশাদারি মনোভাব দেখিয়েছেন তা সত্যিই এক কথায় অসাধারণ। জুভেন্টাসের সবাই এর প্রশংসা করছে। ১০ বছর আগে যে ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি করা হচ্ছে, তাতেও এই ধারণা বদলাচ্ছে না। এই চ্যাম্পিয়নের সংস্পর্শে জুভেন্টাসের যারা এসছেন, তারাও নিশ্চয়ই একমত হবেন।

ডার স্পেইগেল তাদের প্রতিবেদনে আরও জানিয়েছিল, ধর্ষণের পরের দিন স্থানীয় পুলিশের কাছে অভিযোগ করেছিলেন মায়োরগা। এমনকি ঘটনার পর আত্মহত্যার চিন্তাও করেছিলেন তিনি। তবে, বিষয়টি গোপন রাখতে ৩ লাখ ৭৫ হাজার ডলারে সমঝোতা করেছিলেন রোনালদো। সামাজিক অবস্থানের কথা ভেবে মায়োরগা পরে চুপ থাকার সিদ্ধান্ত নেন।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট