নিখোঁজ সৌদি সাংবাদিককে কনস্যুলেটের মধ্যে হত্যা করা হয়েছে: তুর্কি সূত্র

নিখোঁজ সৌদি সাংবাদিককে কনস্যুলেটের মধ্যে হত্যা করা হয়েছে: তুর্কি সূত্র

সৌদি আরবের সরকার বিরোধী নিখোঁজ সাংবাদিক জামাল খাশোগি ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটের ভেতর নিহত হয়ে থাকতে পারেন বলে তুর্কি কর্তৃপক্ষ আভাস দিয়েছে। খাশোগি গত মঙ্গলবার ওই কনস্যুলেটে প্রবেশ করার পর থেকে নিখোঁজ রয়েছেন। সৌদি আরবের ভিন্ন মতাবলম্বী এই সাংবাদিক দেশটির রাজতন্ত্রের ঘোর সমালোচক।

তুরস্কের দু’টি সূত্র বলেছে, ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটের ভেতরেই খাশোগি নিহত হয়েছে বলে তারা দৃঢ়ভাবে মনে করছেন। একটি সূত্র বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছে, সৌদি কনস্যুলেটের ভেতরে ওই সাংবাদিককে হত্যা করে তার লাশ সেখান থেকে সরিয়ে ফেলা হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সূত্রটি রয়টার্সকে বলেছে, “তুর্কি পুলিশের প্রাথমিক তদন্তের ফলাফল হচ্ছে, খাশোগি ইস্তাম্বুলস্থ সৌদি কনস্যুলেটে নিহত হয়েছেন। তাকে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে এবং হত্যার পরপরই লাশ কনস্যুলেটের বাইরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।”

সৌদি রাজতন্ত্রের ঘোর বিরোধিতাকারী খাশোগি ২০১৭ সাল থেকে আমেরিকায় স্বেচ্ছা-নির্বাসিত জীবন কাটাচ্ছিলেন। সরকার বিরোধীদের বিরুদ্ধে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমান ব্যাপক ধরপাকড় অভিযান শুরু করার পর তিনি যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান।

গত মঙ্গলবার বিয়ে করার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আনতে তিনি ইস্তাম্বুলস্থ সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশ করেন। এ সময় তার হবুবধু কয়েক ঘণ্টা কনস্যুলেটের বাইরে অপেক্ষা করেন। কিন্তু খাশোগি সেখান থেকে বের না হওয়ার পর ওই নারী তুরস্কের পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন।

ওই অভিযোগ দায়েরের কয়েক ঘণ্টা পর সৌদি কর্মকর্তারা দাবি করেছেন, খাশোগি সৌদি কনস্যুলেট থেকে চলে গেছেন। আঙ্কারা বলছে, সৌদি আরবের এই দাবির পক্ষে তারা কোনো প্রমাণ দেখাতে পারেনি।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট