পাইথন কমোড থেকে বের হয়ে গোপনাঙ্গে কামড় দিলো

পাইথন কমোড থেকে বের হয়ে গোপনাঙ্গে কামড় দিলো

দুঃস্বপ্ন। যে কোনও মানুষের কাছে এমন ঘটনা দুঃস্বপ্ন। ধরুন আপনি আরাম করে বসে আছেন আপনার বাড়ির সাধের শৌচাগারে। কমোডের মধ্যে থেকে বেরিয়ে এল ১১ ফিট লম্বা এক পাইথন। কী করবেন! শুধু এসে একবার উঁকি দিয়ে চলে যাওয়াও নয়। সেই পাইথন যদি কোমড থেকে বেরিয়ে আপনার গোপনাঙ্গে আঘাত করে! বিশ্বের সবথেকে ভয়ঙ্কর সাপের ছবির চিত্রনাট্যগুলো হয়তো এর থেকে ভালো। কিন্তু, এটা কোনও গল্প বা চিত্রনাট্য নয়। চরম বাস্তব ঘটনা। গোপনাঙ্গে পাইথনের আঘাতে কাবু হয়ে এখন হাসপাতালে ভর্তি ৩৮ বছরের ব্যক্তি আথাপরন বুনমাকশুয়ে।

ঠিক কী হয়েছিল ? থাইল্যান্ডের সাসোয়েংসাও-এর বাসিন্দা আথাপরনের জীবনে এটা ছিল একটা ভয়ঙ্কর দিন। শৌচকর্মের সময় বুঝতে পারেন বিদ্যুৎ গতিতে তাঁর গোপনাঙ্গ চেপে ধরেছে শক্ত কোনও চোয়াল। কিছুক্ষণ মাথা কাজ করেনি যন্ত্রণায়। তারপর বুঝলেন এটা একটা বিশাল বড় পাইথন। কোমড থেকে মুখ বের করে গোপনাঙ্গ কামড়ে ধরেছে। সে সময় কেই বা মাথা ঠিক রাখতে পারে! দু’হাতে বিশালাকৃতি সাপের চোয়াল ধরে নিজের ছাড়ানোর মরিয়া চেষ্টা করেন আথাপরন। তাও সম্ভব হয় না। কী করবেন বুঝতে না পেরে তারপর স্ত্রীকে ডাকেন তিনি। এরপর দু’জন মিলে বাথরুমের দরজা দিয়ে আঘাত করে পাইথনটিকে ছাড়ায়।

ধস্তাধস্তিতে গোপনাঙ্গ থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয় আথাপরনের। বাথরুমের মেঝে লাল হয়ে যায়। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। উদ্ধারকারী দল এসে বাথরুমের পাইপ থেকে পাইথনটিকে বের করেছে। উদ্ধারকারী টিমের বিশেষজ্ঞরা জানান, বাথরুমের পাইপে আসার আগে অন্য পাইপের মাধ্যমে ঘরে ঢুকেছিল ওই দানবাকৃতি সাপ। কোমডের পাইপ থেকে বেরোতে যাওয়ার সময় আথাপরন সামনে থাকায় এই আক্রমণ। উদ্ধারকারী দল এরপর কোমড ভেঙে অতিসাবধানে পাইথনটিকে বের করে। বন দপ্তরের কর্মীরা নিয়ে চলে যায় পাইথনটিকে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, প্রচুর রক্তক্ষরণ হলেও এখন কিছুটা সুস্থ হয়ে উঠছেন আথাপরন।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট