পাকিস্তানকে গোল বন্যায় ভাসিয়ে সেমিতে মেয়েরা

পাকিস্তানকে গোল বন্যায় ভাসিয়ে সেমিতে মেয়েরা

গ্রুপ পর্ব থেকে আগেই অনেক ছিটকে গেছে পাকিস্তান। নেপাল তাদের জালে বল পাঠিয়েছে ১২ বার। তিন বছর নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আসা দুর্বল পাকিস্তানের জালে গোলবন্যা বইয়ে দিবে এমনটাই অনুমিতই ছিল। গুনে গুনে ১৭ বার পাকিস্তানের জালে বল জড়িয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা।

এ জয়ে ভুটানে অনুষ্ঠিত সাফ অনূর্ধ্ব-১৮ ফুটবলের বি গ্রুপ পর্ব থেকে সেমি ফাইনাল নিশ্চিত করে ফেলেছে মারিয়া-স্বপ্নারা। চাংলিমিথান স্টেডিয়ামে আজ সন্ধ্যা ৭টায় শুরু হয় বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের এই ম্যাচ।

লাল-সবুজদের হয়ে গোল পেয়েছেন হ্যাটট্রিক সহ একাই সাত গোল দিয়েছেন স্বপ্না, চার গোল মার্জিয়ার, দুটি করে শিউলি আজিম ও মিশারাত জাহান। একটি করে শ্রীমতি কৃষ্ণারানী সরকার, তহুরা খাতুন ও আঁখি খাতুনের।

ম্যাচের শুরুতেই পাকিস্তানকে চেপে  বাংলাদেশের মেয়েরা। সেই সুবাদে জালের দেখাও দ্রুত পেয়ে যায় গোলাম রব্বনী ছোটনের শিষ্যরা। ৭ম মিনিটে মার্জিয়া গোল করেন। এরপর ম্যাচের ১০ম মিনিটে লাল-সবুজদের লিড ২-০ করেন স্বপ্না। এরপর ১৩ ও ২২তম মিনিটে গোল করে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন মার্জিয়া। তারপরও একটু গোলের ক্ষুধা কমেনি জুনিয়র টাইগ্রেসদের।  ৩০তম মিনিটে নিজের দ্বিতীয় ও দলের ৫ম গোলটি করেন সেই স্বপ্না। এদিকে ৩২তম মিনিটে শিউলি ও ৩৭তম মিনিটে পাকিস্তানের জালে বল জড়িয়ে আনন্দে মাতেন মৌসুমী। বিরতির আগে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন স্বপ্না।

দ্বিতীয়ার্ধে ফিরে আরো দুর্দান্ত খেলে বাংলাদেশের মেয়েরা।  এই অর্ধের ৫৮ মিনিটে গোল করেন  আঁখি খাতুন। ৬২ মিনিটে নিজের পঞ্চম গোলটি করেন স্বপ্না। ৬৯ মিনিটে বাংলাদেশের ১১তম গোলটি করেন শিউলি।

ম্যাচের ৭১ মিনিটে নিজের চতুর্থ ও দলের ১২তম গোল পূর্ণ করেন মার্জিয়া। তিন মিনিট পর বাংলাদেশকে আরেকটি গোল এনে দেন স্বপ্না। পরের মিনিটেই ১৪তম গোলের স্কোরলাইন স্পর্শ করান কৃষ্ণরানি সরকার।

এদিকে ম্যাচের ৭৫তম মিনিটে দলের ১৫তম ও নিজের ষষ্ঠ গোলটি করেন স্বপ্না। ৮৭ মিনিটের গোল তহুরা খাতুন গোল করে বাংলাদেশে বড় জয়ের উচ্ছ্বাসটা আরেকটু বাড়িয়ে দেন। শেষে যোগ করা সময়ে পাকিস্তানের কফিনে শেষ পেরেক টুকে নিজের সপ্তম আর দলের ১৭তম গোল করেন সেই স্বপ্না

বয়সভিত্তিক সাফের এই টুর্নামেন্ট এবারই প্রথম।  ‘বি’-গ্রুপে খেলছে বাংলাদেশ। সেখানে দলটির সঙ্গী নেপাল ও পাকিস্তান। প্রথম দিন নেপাল ১২-০ গোলে হারিয়েছে পাকিস্তানকে। তাই আজ পাকিস্তানকে হারিয়ে সেমিফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করল লাল-সবুজের মেয়েরা। বয়সভিত্তিক ও সিনিয়র দল মিলিয়ে বাংলাদেশ কখনোই পাকিস্তানের কাছে হারেনি। আজও জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ল গোলাম রব্বানীর শিষ্যরা।

আগামী মঙ্গলবার গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে বাংলাদেশ খেলবে নেপালের বিপক্ষে। ৫ অক্টোবর হবে এটি দুটি সেমিফাইনাল। আর ৭ অক্টোবর হবে তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচ ও ফাইনাল। ‘এ’ গ্রুপে রয়েছে ভারত, স্বাগতিক ভুটান ও মালদ্বীপ।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট