পাক প্রধামন্ত্রীকে জামা খুলিয়ে তল্লাশি! বিতর্কে মার্কিন বিমানবন্দর

পাক প্রধামন্ত্রীকে জামা খুলিয়ে তল্লাশি! বিতর্কে মার্কিন বিমানবন্দর

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মিলেছিল সে দেশের রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের উষ্ণ আলিঙ্গন। আর পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহিদ খকন আব্বাসির কপালে জুটল কি না একরাশ ‘হেনস্থা’! নিউ ইয়র্কের জন এফ কেনেডি বিমানবন্দরে জামা খুলিয়ে তাঁকে তল্লাশি করার ছবি ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পরেও যে ট্রাম্প প্রশাসনের খুব একটা হেলদোল রয়েছে, তা নয়। তবে, ক্ষোভে ফুঁসছে পাকিস্তান।

জানা গিয়েছে, ঘটনাটি ঘটেছিল গত সপ্তাহে। অসুস্থ বোনের সঙ্গে দেখা করার জন্য নিউ ইয়র্কে পা দিতেই তল্লাশির মুখে পড়েন পাক প্রধানমন্ত্রী। কেমন সেই তল্লাশি? ভিডিয়োয় দেখা গিয়েছে, যে কোট তিনি পরেছিলেন, সেটা হাতে ধরে রয়েছেন। তল্লাশিতে বিধ্বস্ত আব্বাসিকে গায়ের টি শার্ট ঠিক করতে দেখা গিয়েছে। তল্লাশির শেষে এক হাতে কোট, অন্য হাতে নিজের স্যুটকেস টানতে টানতে তিনি বিমানবন্দর থেকে বেরিয়ে যান।

গোটা ঘটনায় ক্ষুব্ধ ইসলামাবাদ। তাদের অভিযোগ, রাষ্ট্রপ্রধানদের কোনও সফরই ব্যক্তিগত নয়। ডিপ্লোম্যাটিক পাসপোর্ট থাকা সত্ত্বেও তল্লাশি করে শুধু আব্বাসিকে অপমান করেনি মার্কিন প্রশাসন, এটা পাকিস্তানেরও অপমান।

দেখুন ভিডিয়ো:

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সফরে গিয়ে অনেককেই পড়তে হয়েছে এমন তল্লাশির মুখে। সেই তালিকায় অভিনেতা শাহরুখ খান থেকে শুরু করে অনেকেরই নাম রয়েছে। কিন্তু আব্বাসিতো একটা দেশের প্রধানমন্ত্রী! কেন তাঁর সঙ্গে এমন আচরণ? পাকিস্তানের প্রশ্নের জবাবে জন এফ কেনেডি বিমানবন্দর বলছে, গোটাটাই রুটিন তল্লাশি। যদিও অনেকেই কিন্তু এই ঘটনার মধ্যে ট্রাম্পের ‘পাক নীতির’ প্রতিফলন দেখতে পাচ্ছেন। জঙ্গিদের মদত দেওয়ার অভিযোগে, ইতিমধ্যেই পাকিস্তানের উপর একগুচ্ছ নিষেধাজ্ঞা চাপিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন। তার উপর পাকিস্তানিদের ভিসা দেওয়া নিয়ে আরও বিধিনিষেধ চাপানোর কথা ভাবা হচ্ছে। অনেকেই বলছেন, আব্বাসিকে তল্লাশির ঘটনায় আরও বিষিয়ে গেল পাক-মার্কিন সম্পর্ক।

 

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট