পুরুষের চেয়ে নারীরা বেশি ঘুমায়

পুরুষের চেয়ে নারীরা বেশি ঘুমায়

পুরুষের চেয়ে নারীরা রাতে আধা ঘণ্টা বা এর চেয়ে বেশি ঘুমায়। সাধারণত ৩০ থেকে ৬০ বছর বয়সী নারীদের মধ্যে এমন দেখা যায়। আর সূর্যের আলোয় নিয়মিত থাকা ব্যক্তিদের রাতে নিরবচ্ছিন্ন ঘুম হয়। মানুষের ঘুম সম্পর্কে এমন কিছু কৌতূহলোদ্দীপক তথ্য জানিয়েছেন যুক্তরাজ্যের গবেষকরা।

বিশ্বের মানুষের ঘুমের অভ্যাসের ওপর গবেষণা করেন যুক্তরাজ্যের কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা। এর আগে মানুষের ঘুমের অভ্যাস সম্পর্কে তথ্য জানতে ‘এনট্রেন’ নামে বিশেষ অ্যাপ তৈরি করা হয়।

এই অ্যাপ ব্যবহার করে যে কেউ নিজের ঘুমের অভ্যাসের তথ্য সংরক্ষণ করতে পারেন। আর শেয়ারের মাধ্যমে ওই তথ্য পান গবেষকরা। মানুষের ঘুমের অভ্যাস নিয়ে করা গবেষণা প্রতিবেদনটি প্রকাশ করেছে বিজ্ঞান সাময়িকী ‘সায়েন্স অ্যাডভান্সেস’।

গবেষকরা জানান, নারীরা নিয়মিত পুরুষের চেয়ে বেশি ঘুমান। আর মধ্য বয়সে এই প্রবণতা বেশি দেখা যায়। এ ছাড়া বিভিন্ন দেশের মানুষের ঘুমানোর অভ্যাসের মধ্যেও তুলনা করেন গবেষকরা। তাঁরা জানান, সিঙ্গাপুর বা জাপানের চেয়ে নেদারল্যান্ডসের নাগরিকরা রাতে অন্তত এক ঘণ্টা বেশি ঘুমায়।

গবেষকরা আরো জানান, জাপান ও সিঙ্গাপুরে মানুষ গড়ে সাত ঘণ্টা ২৪ মিনিট ঘুমান। অন্যদিকে নেদারল্যান্ডসের মানুষ ঘুমায় গড়ে আট ঘণ্টা ১২ মিনিট। যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্সের মানুষ গড়ে প্রায় আট ঘণ্টা ঘুমায়। আবার বিশ্বের তরুণদের মধ্যে নিরবচ্ছিন্ন ঘুম কমে গেছে। বিভিন্ন কারণে রাতের ঘুমের সময়ে তাঁদের জেগে থাকতে দেখা যায়।

কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক ও শিক্ষক ড্যানিয়েল ফরজার জানান, মানুষের মধ্যে দেরি করে ঘুমানো কিন্তু আগে আগে উঠতে চাওয়া—এমন বিপরীত অবস্থা দেখা যায়। গভীর রাতে খাবার গ্রহণ করেও সাতসকালেই কর্মক্ষেত্রে ফিরতে চাওয়ার প্রবণতা চোখে পড়ে।

গবেষকরা আশা করেন, বিশ্বের মানুষের ঘুমের ওপর পাওয়া বিভিন্ন তথ্য ঘুম নিয়ে বিশ্বজুড়ে সংকটের সমাধানে ব্যবহার করা যাবে। অনিয়মিত ও অপর্যাপ্ত ঘুমের কারণে মানুষের মধ্যে বিভিন্ন শারীরিক ও মানসিক রোগ দেখা যায়। অনিয়মিত ঘুম টাইপ-টু ডায়াবেটিসের জন্যও দায়ী।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট