পেসারদের অ্যাকশনে পরিবর্তন আনবেন না ওয়ালশ

পেসারদের অ্যাকশনে পরিবর্তন আনবেন না ওয়ালশ

চ্যাম্পিয়নস ট্রফির পর মানসিকতায় পরিবর্তন এসেছে বাংলাদেশ পেসারদের বলেছেন কোর্টনি ওয়ালশ। স্বাভাবিক বোলিং অ্যাকশন ঠিক রেখে পেসারদের শক্তির জায়গাগুলো নিয়ে কাজ করছেন তিনি। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজেই চনমনে-ধারালো পেস অ্যাটাক দেখার প্রত্যাশা টাইগার বোলিং কোচের।

চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে পেসারদের সাদামাটা পারফরম্যান্স সন্তুষ্ট করতে পারেনি সমর্থকদের। ইংল্যান্ডের সিমিং কন্ডিশনে চার পেসার মিলে ১০৮ ওভার বল করে নিয়েছিলেন ৭ উইকেট সেখানে দুই অকেশনাল স্পিনার ১৪ ওভার হাত ঘুড়িয়েই তুলে নিয়েছিলেন ৪ উইকেট। হতাশার বিষয়টি অজানা নয় বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশের।

তবে অস্ট্রেলিয়া সিরিজেই পেসারদের মাঝে ভিন্ন কিছুর প্রত্যাশা ক্যারিবিয় কিংবদন্তীর। স্কিল বা পেইসে রাতারাতি বৈপ্লবিক কিছু নয়, পরিবর্তনটা আশা করছেন পেইস ব্যাটারির মনোভাবে।

বাংলাদেশের বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ, আমাদের দলের পেসাররা প্রায় সবাইই বয়সে নবীন। প্রতিটি নতুন সিরিজ, ম্যাচ, কন্ডিশন থেকে তারা শিখছে। সে সাথে আমি তাদের পরামর্শ দিয়েছি, যাতে তারা একে ওপরের সাথে নিজস্ব আইডিয়া শেয়ার করে, এ কাজটা আমি করতাম কার্ট্টলি অ্যামব্রোসের সাথে।

হতাশার পাল্লা সবচেয়ে বেশী ভারী মুস্তাফিজের কারণে। ওয়ালশ অবশ্য বলছেন, বাড়তি কিছু চেষ্টা করা হয়নি, দ্যা ফিজের স্বাভাবিক অ্যাকশন পরিবর্তনেও চেষ্টা করেনি কেউ। শুধু মুস্তাফিজই নন নিজস্ব অ্যাকশন ঠিক রেখে শক্তির জায়গাগুলো ধারালো করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে রুবেল-কামরুলদেরও।

বাংলাদেশের বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ, অনেকে বলছেন আমি পেসারদের অ্যাকশন বদলে দিয়েছি। ব্যাপারটি তা নয় আমি মূলত চেষ্টা করি কোন ত্রুটি থাকলে তা শুধরে দিতে। আমি বিশ্বাস করি একজন ক্রিকেটার সবচেয়ে ভালো শেখে খেলার মাঠেই। দুঃখজনকভাবে,আমরা খুব বেশি খেলার সুযোগ পাইনা। তবে অনুশীলনে ছেলেদের একাগ্রতা আমি দেখেছি এবং ওরা খুব দ্রুত উন্নতি করছে।

বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য ভালো হবে এমন যে কোন কিছুকেই স্বাগত জানাতে প্রস্তুত ওয়ালশ। চাম্পাকা রামানায়েকের সাথে জুটি বেঁধে টাইগার ক্রিকেটের উন্নয়নে কাজ করতে চান তিনি

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট