প্রধানমন্ত্রীর কাছে রুশ ভাষায় প্রকাশিত দুইটি বই হস্তান্তর

প্রধানমন্ত্রীর কাছে রুশ ভাষায় প্রকাশিত দুইটি বই হস্তান্তর

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে রুশ ভাষায় অনুবাদ করা দুটি বই রবিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে তুলে দেয়া হয়েছে।রাশিয়ান একাডেমি অব সায়েন্সের ইনস্টিটিউট অব ওরিয়েন্টাল স্টাডিজের অধ্যাপক ড. ভি নাউমকিন দুই বই- ‘শেখ মুজিবুর রহমান অ্যান্ড বার্থ অব বাংলাদেশ’ এবং ‘আনফিনিশড মেমোয়ারস অব বঙ্গবন্ধু’ রুশ ভাষায় অনুবাদ করেন।

বইগুলোর প্রকাশ ড. নাউমকিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কার্যালয়ে তার হাতে কপি তুলে দেন।

সেই সাথে তিনি ‘কনভারসেশন অব প্রফেসর ড. ভি নাউমকিন উইথ শেখ হাসিনা’ শীর্ষক একটি বইয়ের কপিও প্রধানমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর করেন।

হস্তান্তর অনুষ্ঠান শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

শেখ হাসিনাকে নিয়ে খেলা বইটি চার ভাষা- বাংলা, রুশ, ইংলিশ ও আরবিতে প্রকাশ করা হয়েছে।

অধ্যাপক নাউমকিন প্রধানমন্ত্রীকে জানান যে আগামী বছর জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীকে সামনে রেখে ‘আনফিনিশড মেমোয়ারস অব বঙ্গবন্ধু’ ব্যাপকভাবে বিতরণ করার উদ্যোগ নেয়া হবে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে বাংলাদেশ চমৎকার উন্নয়নের দেখা পেয়েছে।

অধ্যাপক নাউমকিন আরও বলেন, বাংলাদেশ ও রাশিয়ার মধ্যে খুব ভালো দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক এবং ১৯৭১ সালের পর থেকে বাংলাদেশের বিভিন্ন খাতে উন্নয়নে সহযোগিতা বিদ্যমান রয়েছে।

রাশিয়ার সহায়তায় বাংলাদেশে পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন প্রসঙ্গে তিনি জানান, তার দেশে প্রয়োজনীয় লোকবল তৈরির জন্য বিশেষ করে বাংলাদেশি প্রকৌশলী ও অন্যদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ দিচ্ছে, যাতে ভবিষ্যতে তারা নিজেরাই বিদ্যুৎকেন্দ্রটি পরিচালনা করতে পারে।

শেখ হাসিনা বইগুলো রুশ ভাষায় অনুবাদ ও প্রকাশের উদ্যোগ নেয়ায় অধ্যাপক নাউমকিনকে ধন্যবাদ জানান।

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় রুশ সরকার ও জনগণের সমর্থন এবং যুদ্ধ শেষে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে মাইন অপসারণে তাদের সহযোগিতার কথা কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি উল্লেখ করেন যে মাইন অপসারণ করার সময় রুশ নৌবাহিনীর অনেক সদস্য তাদের জীবন উৎসর্গ করেছিলেন।

বাংলাদেশের উন্নয়ন সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার সরকারের লক্ষ্য হলো একেবারে তৃণমূল পর্যায় থেকে দেশের উন্নয়ন এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করা।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট