প্রিয়াঙ্কার উপর এভাবে প্রতিশোধ নিতে চেয়েছিলেন প্রাক্তন প্রেমিক !

প্রিয়াঙ্কার উপর এভাবে প্রতিশোধ নিতে চেয়েছিলেন প্রাক্তন প্রেমিক !

 

সিনেমা সম্পর্কে যাঁরা একটু আধটু খোঁজখবর রাখেন, তাঁরা প্রিয়াঙ্কার প্রথম বয়ফ্রেন্ড অসীম মার্চেন্টের কথা জানেন। ছবিতে নামার আগে মডেলিং করতেন প্রিয়াঙ্কা। সেসব দিনে তাঁর বয়ফ্রেন্ড ছিলেন অসীম। পরে যদিও সে সম্পর্ক ভেঙে যায়। কিন্তু, সম্পর্ক ভাঙলে কী হবে, প্রিয়াঙ্কাকে ভুলতে পারেননি অসীম। প্রেমে আঘাত পেয়ে তিনি নাকি প্রতিশোধ নিতে চেয়েছিলেন। কোন উপায়ে? শোনা যায়, প্রিয়াঙ্কাকে নিয়ে বায়োপিক করার পরিকল্পনা করেছিলেন অসীম। ইচ্ছে ছিল বায়োপিকের মাধ্যমে প্রিয়াঙ্কার জীবন সম্পর্কিত এমন কিছু তথ্য সামনে আনবেন যা আলোড়ন ফেলে দেবে সাধারণ মানুষের মধ্যে। তবে আচমকা সেই বায়োপিক থেকে নিজেকে সরিয়েও নেন অসীম।

বায়োপিকের জন্য অসীম পাশে পেয়েছিলেন প্রিয়াঙ্কার প্রাক্তন ম্যানেজার প্রকাশ জাজুকে। আসলে বায়োপিকের মাধ্যমে প্রিয়াঙ্কাকে বদনাম করার পরিকল্পনাটা ছিল প্রকাশের। কারণ, প্রিয়াঙ্কার অভিযোগের ভিত্তিতে জেল খাটতে হয়েছিল প্রকাশকে। ৬৭ দিন জেলে ছিলেন তিনি। ছবির নাম সিক্সটি সেভেন ডেজ় রাখবেন বলে ঠিকও করে ফেলেছিলেন প্রকাশ।

ছবি ঘিরে বিতর্ক কম হয়নি। ছবিটি আটকানোর জন্য প্রিয়াঙ্কা কোমর বেঁধে নেমেছিলেন। তিনি আইনি নোটিসও পাঠান ছবি নির্মাতাদের। তবে সেসময় প্রিয়াঙ্কার কোনও কথায় কর্ণপাত করেননি অসীম। ফলে অনেকে মনে করেন, প্রিয়াঙ্কাকে নিয়ে বায়োপিক হবেই।

অসীম মার্চেন্টের পোস্ট

অসীম মার্চেন্টের পোস্ট

তবে সবাইকে চমকে দিয়ে নিজেই বেঁকে বসেন অসীম। তিনি ছবিটিতে কাজ করবেন না, জানিয়ে দেন। এই মর্মে টুইটবার্তায় লেখেন, প্রিয়াঙ্কা একজন সৎ ও পরিশ্রমী মানুষ। তাঁকে বদনাম করার কোনও ইচ্ছে নেই।

অনেকে বলাবলি করছেন, প্রিয়াঙ্কার জীবনের বিতর্কিত দিককে ছবির মাধ্যমে তুলে ধরার সিদ্ধান্ত থেকে অসীমের সরে আসার পিছনে নিশ্চয় কোনও কারণ রয়েছে। না হলে আচমকা ছবি থেকে সরে যেতেন না তিনি। কী সেই কারণ, তা জানা যাবে কি? সময়ই উত্তর দেবে এই প্রশ্নের।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট