পড়ন্ত বেলায় বাবা হচ্ছেন রেলমন্ত্রী

পড়ন্ত বেলায় বাবা হচ্ছেন রেলমন্ত্রী

অবশেষে ৬৯ বছর বয়সে বাবা হতে যাচ্ছেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক। বাবা ডাক শোনার সময় ঘনিয়ে আসছে তাঁর ভাগ্যে।

পুরানো ইঞ্জিন বলে অনেকেই হাস্যরস করেছেন। ট্রেন ঠিকভাবে চলবে কিনা- এ নিয়েও শঙ্কায় ছিলেন কেউ কেউ। তবে তাদের সে আশঙ্কা দূর করে নতুন খবর এসেছে। অবশেষে বাবা হচ্ছেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক।

চলতি সপ্তাহে সু-খবর পেতে যাচ্ছেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক।রেলমন্ত্রীর সন্তান-সম্ভবা স্ত্রী হনুফা আক্তার রিতা বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। বিয়ের পর এটিই হবে তাদের প্রথম সন্তান।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে বলে মন্ত্রীর পারিবারিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

পারিবারিক সূত্র জানায়, রেলমন্ত্রীর স্ত্রী এরই মধ্যে গর্ভধারণের নয়মাস পার করেছেন। চিকিৎসকরা অবশ্য আগেই চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে সম্ভাব্য তারিখ দিয়ে রেখেছিলেন। মা হওয়ার জন্য নির্ধারিত সময়েই তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্কয়ার হাসপাতালে যোগাযোগ করা হলে কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে কোনো তথ্য দিতে অপারগতা জানায়। তবে নাম প্রকাশ না করার শর্তে হাসপাতালে জনসংযোগ বিভাগের এক কর্মকর্তা রেলমন্ত্রীর স্ত্রীর ভর্তির সত্যতা নিশ্চিত করে করেছেন।

২০১৪ সালের ৩১ অক্টোবর ৫ লাখ ১ টাকা দেনমোহরে কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার মীরাখোলা গ্রামের মেয়ে হনুফা আক্তার রিক্তাকে বিয়ে করেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক।

১৯৪৭ সালের ৩১ মে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের বসুয়ারা গ্রামে মো. মুজিবুল হক জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৯৬, ২০০৮ ও ২০১৪ সালে তিনি চৌদ্দগ্রাম থেকে সাংসদ নির্বাচিত হন। ২০১২ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে তিনি রেলপথমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন।

অন্যদিকে ১৯৮৫ সালের ২০ মে হনুফা আক্তার ওরফে রিক্তা জন্মগ্রহণ করেন। ২০০১ সালে গল্লাই আবেদা নূর বালিকা উচ্চবিদ্যালয় থেকে রিক্তা এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। এরপর তিনি স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করে এলএলবি পাস করেন।

তাদের বিয়ের পর অনেকেই রেলমন্ত্রীর বয়সের কারণে তাদের ভবিষ্যৎ নিয়ে বেশ কৌতুহলী ছিলেন। রেলমন্ত্রীর ঘরে নতুন অতিথি আসার খবর ওইসব কৌতুহলীদের জন্যও ভিন্নমাত্রা যোগ করবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট