‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত চার

‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত চার

রাজধানীর রূপনগর বেড়িবাঁধ পানি উন্নয়ন বোর্ড এর পশ্চিম পাশের মাঠে ডিবি পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’র ঘটনায় দুই ছিনতাইকারী নিহত হয়েছে। ছিনতাইকারীরা নিজেদের ছো্ঁড়া গুলিতে গুলিবিদ্ধ হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ঘটনাস্থল থেকে একটি প্রাইভেটকার, দুইটি পিস্তল ও একটি ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে।

বুধবার (২৬ জুলাই) ভোর ৫টার দিকে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

বন্দুকযুদ্ধে গুরুতর আহত হলে পল্লবী থানা পুলিশ তাদেরকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে ঢামেক (ঢাকা মেডিকেল কলেজ) হাসপাতালে নিয়ে আসলে সকাল পৌনে ৭টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। নিহতদের নাম পরিচয় এখনও জানা যায়নি। তাদের একজনের বয়স আনুমানিক ৪০ বছর ও অপর ব্যক্তির ৪৫ বছর হবে। তাদের পরনে চেক শার্ট ও লুঙ্গি ছিল।

ডিবি পশ্চিম জোনের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. শাহাদত হোসেন জানান, রুপনগর বেড়িবাঁধ এলাকায় ছিনতাইকারীরা ছিতাইয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছে-এমন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালায় পুলিশ। ঘটনাস্থলে পৌঁছলে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে তারা। পরে পুলিশ পাল্টা গুলি চালায়। ছিনতাইকারীরা ছোঁড়া গুলিতে বিদ্ধ হয়ে দুই ছিনতাইকারী আহত হয়। পরে তাদেরকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরও জানান, ছিনতাইকারীরা মোট ৪জন ছিল। দুইজন পালিয়ে গেছে।

কুষ্টিয়ায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই ডাকাত নিহত

অন্যদিকে কুষ্টিয়ার বাড়াদী ও ভেড়ামারার দশ মাইলে পুলিশের সঙ্গে পৃথক ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই ডাকাত নিহত হয়েছে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র, গুলি ও ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ। পৃথক এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় ৭ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

এরমধ্যে বাড়াদী এলাকায় নিহতের নাম সোবহান (৩৭)। তিনি কুমারখালী উপজেলার মনোহরপুর গ্রামের নুর উদ্দিনের ছেলে। তার বিরুদ্ধে ডাকাতিসহ বিভিন্ন অপরাধের একাধিক মামলা রয়েছে। দশ মাইল এলাকায় নিহতের পরিচয় জানা যায়নি।

কুষ্টিয়া মডেল থানার ওসি (অপারেশন) ওবাইদুল্লাহ জানান, পুলিশের হাতে আটককৃত ডাকাত সোবহান আলী (৩৭)-কে নিয়ে মঙ্গলবার মধ্যরাতে অন্য ডাকাতদের আটক করতে সদর উপজেলার বাড়াদী গোরস্থানপাড়ায় গেলে সহযোগী ডাকাতরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এসময় পুলিশের হাতে গ্রেফতারকৃত সোবাহান পালানোর চেষ্টা করে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে গুলি ছুড়লে ডাকাত-পুলিশের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলে সোবাহানের মৃত্যু হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ১টি পিস্তল, ১টি সার্টারগান, গুলি ও কুড়াল উদ্ধার করে।

একইরাতে কুষ্টিয়া-পাবনা মহাসড়কের ভেড়ামারা উপজেলাধীন দশ মাইল এলকায় ডাকাতি হচ্ছে-এমন সংবাদের ভিত্তিতে ভেড়ামারা থানা পুলিশ সেখানে অভিযানে গেলে ডাকাতরা পুলিশকে লক্ষ্যকরে গুলি ছুড়লে পুলিশও পাল্টা গুলি করে। বন্দুকযুদ্ধের এক পর্যায়ে অজ্ঞাত পরিচয়ের এক ডাকাত নিহত হয়। সেখান থেকে উদ্ধার করা হয় ১টি সার্টারগান, ১ রাউন্ড গুলি ও ২টা ধারালো রামদা।

ভেড়ামারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুর হোসেন খন্দকার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানিয়েছেন, নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

 

সম্পর্কিত সংবাদ
নিজস্ব প্রতিবেদক