বাংলাদেশে উলফার কিছু ঘাঁটি এখনো সক্রিয়!

বাংলাদেশে উলফার কিছু ঘাঁটি এখনো সক্রিয়!

বাংলাদেশে উত্তর-পূর্ব ভারতের ‘স্বাধীনতাকামী’ সংগঠন ইউনাটেড লিবারেশন ফ্রন্ট অব আসামের (উলফা) সব গোপন ঘাঁটি এখনও উৎখাত হয়নি। বাংলাদেশে এখনও উলফার বেশকিছু গোপন ঘাঁটি সক্রিয় রয়েছে দাবি করেছে ভারতের জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা এনআইএ।

উলফা স্বাধীনের সভাপতি মুকুল হাজারিকা ওরফে অভিজিৎ আসামের বিরুদ্ধে এনআইএ’র দাখিল করা চার্জশিটে এসব কথা উল্লেখ করা হয়েছে বলে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে।

এদিকে উত্তর-পূর্ব ভারতের প্রভাবশালী দৈনিক যুগশঙ্খ রোববার এক প্রতিবেদনে বলেছে, চারশো বন্দুকধারী নিয়ে ‘ঔপনিবেশিক’ মহাশক্তিধর ভারতের বিরুদ্ধে সশস্ত্র যুদ্ধে অবতীর্ণ হওয়া যে মোটেই সম্ভব নয়, উলফা স্বাধীনের স্বঘোতি সেনাধ্যক্ষ পরেশ বড়–য়া এ কথা ভাল করেই জানে।

তাই সংগঠনের শক্তি বৃদ্ধির জন্য এখন ওঠে পড়ে লেগেছে সে। উজান ও নিন্ম আসামের সমান্তরালভাবে জোর গতিতে চলছে সদস্য ভর্তি অভিযান। কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার (এনআইএ) সর্বশেষ তদন্তে এই বিষয়ে বেশকিছু বিস্ফোরক তথ্য প্রকাশ্যে এসেছে।

এনআইএ-এর মতে, চীন-মিয়ানমারে ঘাঁটি গেড়ে থাকা পরেশ বড়–য়ার সঙ্গে এই মুহুর্তে খুব বেশি হলে ৪০০ক্যাডার রয়েছে। এদের অনেকেই বর্তমানে আসামের বিভিন্ন প্রান্তে বসে সদস্য ভর্তির অভিযান চালাচ্ছে। উজানের ডিব্রুগড়, তিনসুকিয়া,শিবসাগর ও লাখিমপুরে এবং নিন্ম আসামের মুলত নলবাড়ি জেলায় উলফা ফের শক্তিশালী রুপ নেয়ার চেস্টা করছে বলে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়কে জানিয়েছে এনআইএ।

সূত্রের বরাতে যুগশঙ্খ জানায়, প্রচলিত সমাজ ব্যবস্থার প্রতি আস্থাহীন হয়ে পড়া বেকার যুবক-যুবতীদের টার্গেট করেছে উলফা নেতারা। মূলত উক্ত জেলা সমুহের অত্যন্ত পিছিয়ে থাকা এলাকার যুবক-যুবতীদের টার্গেট করেছে উলফা। এছাড়া প্রেমে ব্যর্থ যুবাদেরও সদস্য হিসেবে ভর্তির চেস্টা চালানোর কথা প্রকাশ্যে এসেছে।

অন্যদিকে চীন থেকে উলফা স্বাধীনের অস্ত্র-শস্ত্র পাওয়ার তথ্যও নিশ্চিত করেছে এনআইএ। তাদের একটি প্রতিবেদনে স্পষ্টভাবে উল্লেখ রয়েছে, চীনের নর্থ ইন্ডাস্ট্রিজ গ্রুপ কোর্প (নারিনকো) নামের অস্ত্র নির্মাণকারী সংস্থার কথা। নারিনকো থেকে উলফা স্বাধীন নিয়মিত অস্ত্র ক্রয় করে আসছে। এবং এই অস্ত্র ক্রয়ের ক্ষেত্রে চীনের স্থানীয় প্রশাসন উলফাকে পরোক্ষ সহযোগিতাও করছে।

বলা হয়েছে, আগ্নেয়াস্ত্রের প্রলোভনেই দীর্ঘদিন ধরে চীনের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রেখে চলেছে পরেশ বরুয়া। এই ক্ষেত্রে উত্তর-পূর্বের অন্যান্য জঙ্গি সংগঠন বিশেষ করে প্রয়াত খাপলাং নেতৃত্বাধীন এনএসসিএনের সঙ্গে এনডিএফবি,কেএলওসহ বিভিন্ন বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনের সম্পর্ক বজায় রেখে সম্মিলিতভাবে নারিনকোর সঙ্গে আগ্নেয়াস্ত্রের লেনদেন করছে উলফা।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট