বাংলাদেশ-মিয়ানমার সমঝোতার ভিত্তিতেই রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়া হবে: সু চি

বাংলাদেশ-মিয়ানমার সমঝোতার ভিত্তিতেই রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়া হবে: সু চি

বাংলাদেশ-মিয়ানমার সমঝোতার ভিত্তিতেই রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন দেশটির রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা অং সান সু চি। এ সময় রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন উৎসাহিত করারও প্রতিশ্রুতিও দেন তিনি।

গত বৃহস্পতিবার নেপিদোতে জাপানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আশাহি শিমবুনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেন।

সু-চি বলেন, রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে আইন বিশেষজ্ঞসহ বিভিন্ন বিদেশি পরামর্শকদের সহায়তা নিতে আপত্তি নেই মিয়ানমারের। বাংলাদেশের সঙ্গে মিয়ানমারের যে সমঝোতা হয়েছে সেভাবেই এগিয়ে যাবো।

মিয়ানমারে ফেরত গেলে আবার রোহিঙ্গাদের হামলার শিকার হওয়ার আশঙ্কা আছে কি-না?—এ বিষয়ে দেশটির সু চি বলেন, সব নাগরিকদেরই নিরাপত্তা দিতে পারতে হবে- বিশেষ করে স্পর্শকাতর স্থানগুলোতে। সে জন্য কমিউনিটি পুলিশের ওপর জোর দিচ্ছি এবং নিরাপত্তা বাহিনীর যথাযথ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

রাখাইনের বৌদ্ধ ও রোহিঙ্গাদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে গড়ে ওঠা অবিশ্বাসের কথা উল্লেখ করে সেখানে শান্তি ‘রাতারাতি’ অর্জন করা সম্ভব নয় বলেও জানান সু চি।

এদিকে, রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে আবারও বৈঠক করেছে মিয়ানমার সরকারের সামরিক ও বেসামরিক শীর্ষ প্রতিনিধিরা।

শুক্রবার রাজধানী নেপিদোতে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা অং সান সু চি ও সেনা প্রধান মিং অং হলাংসহ উভয়পক্ষের ১৫ জন উচ্চপদস্থ প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।

প্রেসিডেন্ট উইন মিয়ান্টের কার্যালয়ের অফিসিয়াল ফেইসবুক পাতায় বৈঠকের খবর নিশ্চিত করা হয়েছে।

ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি ওই ফেসবুক পোস্টের সূত্রে জানিয়েছে, বৈঠকে জাতীয় নিরাপত্তাসহ রোহিঙ্গা সংকটের অভ্যন্তরীণ তদন্ত নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

২০১৬ সালের সু চির নেতৃত্বাধীন সরকার এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো এ ধরনের বৈঠক করলো।

*রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন*
সম্পর্কিত সংবাদ
Leave a reply
ডেস্ক রিপোর্ট